| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় যৌতুকের দাবিতে নববধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ; স্বামী গ্রেফতার

নওগাঁ প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৬:৪২:১৬ ।

নওগাঁর মান্দা উপজেলার কাশোপাড়া ইউনিয়নের নিজ কুলিহার গ্রামে জাকিয়া সুলতানা সুমি (১৫) নামের এক নববধূকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সকালে থানা পুলিশ শয়ন ঘরের গ্রীলের জানালার সাথে গলায় ওড়না পেচাঁনো অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে। নিহত জাকিয়া ওই গ্রামের ওয়াহেদ আলীর(২২) স্ত্রী। এই ঘটনায় নিহতের মা আছমা খাতুন বাদী হয়ে জামাই ওয়াহেদ ও তার পিতা-মাতাসহ ৪ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দাযের করেছে। পুলিশ ওয়াহেদকে গ্রেফতার করে শনিবার বিকেলে জেল হাজতে পাটিয়েছে।
 

জানা গেছে, নিজ কুলিহার গ্রামের এমরান হোসেনের ছেলে ওয়াহেদ আলী প্রায় ৪ মাস আগে মোবাইলে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে একই ইউনিয়নের রাঙ্গামাটি গ্রামের জাহেদুর রহমানের মেয়ে সুমিকে বিয়ে করে। বিযের পর থেকেই ওয়াহেদ ও তার পরিবার ২ লাখ টাকার যৌতুকের দাবিতে সুমির উপর নানা ভাবে নিযাৃতন করে আসছিল। এর এক পর্যায গত শুক্রবার বিকেলে আবারো যৌতুকের দাবিতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বাক-বিতন্ডা হয। পরদিন সকালে শয়ন ঘরের জানালার গ্রীলের সাথে পা মেঝেতে ভাজানো অবস্থায় সুমির লাশ উদ্ধার করে। মামলা বাদী নিহতের মা আছমা খাতুন জানান ওয়াহেদ প্রেমের ফাঁদে ফেলে ৯ম শ্রেনীর ছাত্রী আমার মেয়ে সুমিকে বিয়ে করে । কিন্তু বিযের পর থেকেই তারা পরিবারের সকলেই মিলে সুমির উপর নানা অত্যাচার নির্যাতন করে আসছিল। মেয়ের সুখের চিন্তায় আমরা অনেক কিছুই মুখ বুঝে সহ্য করে আসছিলাম। শুক্রবার রাতে তারা আমার মেয়ে সুমিকে বেদম মারপিট করে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর লাশ জানালার গ্রীলে ঝুলে রেখে আমাদের খবর দেয় সুমি আত্মহত্যা করেছে।    
 

মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তারেকুর রহমান সরকার বলেন, নিহতের শয়নকক্ষের জানালার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় লাশের শরীরে আঘাতের চিহৃসহ মুখ ও গলা দিয়ে রক্ত বের হতে দেখা গেছে। এতে প্রাথমিকভাবে ধারনা তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়ে তাকতে পারে। এই ঘটনায় নিহতের মা বাদি হয়ে ওয়াহেদসহ ৪ জনকে আসামী করে হত্যা মামলা দাযের করেছে। পুলিশ ওযাহেদকে গ্রেফতার করেছে। অন্যদেরর গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। 

মন্তব্য