| প্রচ্ছদ

চেয়ারে বসার মতো দাঁড়ানো ব্যায়ামের যত উপকারিতা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ১৭১ বার

সুস্থ থাকতে নিয়মিত ব্যায়াম কর জরুরী। কিন্তু নিয়মিত ব্যায়াম করার সুযোগ অনেকের হয় না। এমন পরিস্থিতিতে চেয়ারে বসার মতো একটি ব্যায়াম  যদি নিয়মিত করেন তাহলে দারুন উপকার পেতে পারেন। ব্যায়ামের পরিভাষায় এটাকে বলে স্কোয়াট।এই পদ্ধতিতে চেয়ারে বসার মতো করে হাঁটু ভাঁজ করে কোমর ও পিঠ সোজা রেখে দাঁড়াতে হয়। সেই সঙ্গে হাত দুটো সামনের দিকে টানটান করে ছড়ানো থাকতে হয়। রোজ যদি এই পদ্ধতিতে ৫ মিনিটও ব্যায়াম করেন তাহলে লাফানো, দৌড়ানো, হাঁটাহাঁটিতে পায়ের পেশীর যে উপকার পাওয়া যায় তার অনেকটাই পুষিয়ে দেয়। 

এ স্কোয়াট ব্যায়াম শুধু পেশীর জোরই বাড়ায় না সেই সঙ্গে টেস্টোস্টেরন ও গ্রোথ হরমোন নিঃসরণে বিশেষ কার্যকরী হয়। সারা শরীরে শক্তির সমান বণ্টনের ক্ষেত্রেও বিশেষ কাজ করে এই ব্যায়াম। তাই শরীরের উপর ও নিচের অংশে শক্তি প্রদান করতে এই অভ্যাসের জুড়ি নেই। পেশীতে টান, বাতের ব্যথা, একটু দৌড়ঝাঁপেই যাদের পেশীর ব্যথা হয় তাদের জন্য এই ব্যায়াম দারুন উপকারী। প্রতি দিন এমন ব্যায়ামে শরীর সারা দিন সতেজ তো থাকেই, সেই সঙ্গে শরীরের কার্যক্ষমতা বেড়ে যায় কয়েক গুণ। দেহের ভারসাম্য, গতিশীলতা সব কিছুকেই স্বাভাবিক করতে প্রতি দিন এই ব্যায়াম করতে পারেন। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, হাঁটাহাঁটিতে প্রতিদিন যে পরিমাণ ক্যালোরি পুড়ে তার চেয়েও বেশি ফ্যাট ঝরাতে পারে এই ব্যায়াম। অনেক খেলোয়াড়ও দুহাতে দুটি পানির বোতল নিয়ে স্কোয়াট করেন। শরীরের গঠন, পিঠ ও কোমরের আকার এবং গোটা শরীরের গঠন ঠিক রাখতে এটি দারুন কার্যকরী। এছাড়া লিপিড মেটাবলিজম, রক্তে শর্করার পরিমাণ ঠিক রাখতেও এই ব্যায়াম ভূমিকা রাখে। এই ব্যায়ামের প্রভাবে সারা শরীরে রক্ত সঞ্চালন ভাল হয়। হাঁটুর জোর বাড়াতেও এই ব্যায়ামের জুড়ি নেই।  সূত্র : হেলদি বিল্ডার্জড

 

মন্তব্য