| প্রচ্ছদ

কলকাতায় ফের জয়ার জয়ধ্বনি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৭৮ বার

দেশে টানা তিন মাসের ‘দেবী’ উৎসব পেরিয়ে সম্প্রতি ফের কলকাতায় থিতু হলেন ঢাকার অভিনেত্রী জয়া আহসান। সেখানে পৌঁছাতে না পৌঁছাতেই মিলছে জয়ার জয়ধ্বনি।

 

কলকাতায় নেমেই অংশ নিলেন আলোচিত ‘বিসর্জন’ ছবির সিক্যুয়েল ‘বিজয়া’র প্রচারণায়। কৌশিক গাঙ্গুলির এই ছবিটি পশ্চিমবঙ্গে মুক্তি পাচ্ছে ৪ জানুয়ারি।
এই প্রচারণার ফাঁকেই জয়া আহসানকে পাশে বসিয়ে ঘোষণা দিলেন সে দেশের অন্যতম নির্মাতা-অভিনেতা কৌশিক, ‘বিসর্জন’ ও ‘বিজয়া’র গল্পসূত্র ধরে আরও দুটি ছবি নির্মাণ করবেন তিনি। যেখানে নিশ্চয় পাওয়া যাচ্ছে জয়ার চরিত্র পদ্মাকেও। কৌশিকের ভাষায়, ‘‘আসলে ‘বিসর্জন’-এর চারটি পার্ট আছে। ‘বিজয়া’র পরেও চমৎকার একটা গল্প রয়েছে, যেটা পুরোটাই বাংলাদেশে হবে। তবে নামধাম ঠিক করিনি এখনও।”   
এদিকে এমন আগাম খবর আর নতুন ছবি (বিজয়া) মুক্তির রেশ কাটতে না কাটতেই ভারতের স্বনামধন্য পত্রিকা টাইমস অব ইন্ডিয়া জয়ার কাছে পাঠালো নতুন বার্তা। যে বার্তায় স্পষ্ট অক্ষরে লেখা ছিল, এ বছর কলকাতার সেরা বাঙালি নারী অভিনেত্রী হিসেবে জয়া আহসানের নাম! কলকাতায় মুক্তিপ্রাপ্ত বাংলা সিনেমার অভিনেত্রীদের মধ্যে পত্রিকাটির বিবেচনায় বছরের (২০১৮) সেরা হয়েছেন ৮ জন অভিনেত্রী। যে তালিকার শুরুর দিকেই রয়েছে ঢাকার মেয়ে জয়ার নাম। আর এই তালিকায় তিনি উঠেছেন সৃজিতের চলচ্চিত্র ‘এক যে ছিল রাজা’র জন্য। ছবিটিতে মূল চরিত্রে যীশু সেনগুপ্ত থাকলেও ‘মৃন্ময়ী’ চরিত্রে জয়া নিজের জাত চিনিয়েছেন। ছবির সবচেয়ে শক্তিশালী নারী চরিত্রটি ছিল তারই। এ ভাষ্য পত্রিকাটির জুরিবোর্ড সদস্যদের।
না, এই দফায় জয়ার কলকাতা সফরের জয়ধ্বনি এখানেই শেষ নয়। রয়েছে আরও। ‘বিজয়া’র প্রচারাভিযানের ফাঁক গলে চলতি সপ্তাহে তিনি অংশ নিয়েছেন নতুন একটি সিনেমার শুটিংয়েও। ছবিটি ছোট দৈর্ঘ্যের হলেও এর গভীরতা অনেক। কারণ, গল্পটা বিশ্বসাহিত্যের অন্যতম সেরা গল্পকার আন্তন চেকভের। আর ছবিটি নির্মাণ করছেন সুমন মুখোপাধ্যায়। তবে এ বিষয়ে জয়া আহসান মুখফুটে এখনই কিছু বলতে চাইছেন না। বরং যত গল্প বলতে চাইছেন ৪ জানুয়ারির ছবি ‘বিজয়া’ নিয়ে।

‘বিসর্জন’-এ পদ্মাকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছিল আবেগের এক বেড়াজাল। নাসির বাংলাদেশ থেকে নিজের দেশে ফিরে গেলেও, পদ্মা ও গণেশের জীবনের অন্তরালে হয়তো থেকে গিয়েছিলো সে। নিয়তির খেলায় পদ্মা বারবার সম্মুখীন হয় এক নিরন্তর সংগ্রামের। ‘বিজয়া’তে কী পরিণতি হতে চলেছে তার? এবার এই প্রশ্নটার জবাব পাবেন দর্শকরা।- ‘বিজয়া’ প্রসঙ্গে এভাবেই যোগ করলেন জয়া।
এদিকে ১৯ অক্টোবর বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া জয়ার প্রথম প্রযোজিত ছবি ‘দেবী’ এখন আমেরিকা, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রেক্ষাগৃহে ভালোই সাড়া ফেলছে। এরমধ্যে জয়া জানালেন তার দ্বিতীয় প্রযোজনার কথাও। এবারের ছবির নাম ‘ফুড়ুৎ’।
জয়া বললেন, ‘‘সি তে সিনেমা’ সাফল্যের এই যাত্রাপথ ধরে রাখতে চায় প্রতি বছর। বাংলা চলচ্চিত্রের দর্শকদের নিয়মিতভাবে শিল্পমানসম্পন্ন চলচ্চিত্র উপহার দিতে চায়। আর এই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালে নতুন ছবি নিয়ে আসছি আমরা। এটিই হলো, ‘ফুড়ুৎ’। ‘দেবী’কে দেশ-বিদেশের যে অগণিত দর্শকরা ব্যবসাসফল চলচ্চিত্রের কাতারে শামিল করেছেন, যেসব দর্শক-প্রদর্শক-হল মালিক-বিজ্ঞাপনদাতা-শিল্পী-কলাকুশলীদের প্রতি কৃতজ্ঞতাস্বরূপ আমরা এটি নির্মাণ করতে যাচ্ছি।’’
অন্যদিকে ২০১৭ সালের ১৪ এপ্রিল মুক্তি পায় কলকাতার ছবি ‘বিসর্জন’। মুক্তির আগেই ছবিটি জয় করে নেয় সেরা বাংলা চলচ্চিত্র বিভাগে ভারতের ৬৪তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এতে অভিনয়ের জন্য জয়া অর্জন করেন জি সিনে ও ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডসহ একাধিক ভারতীয় স্বীকৃতি।

খবর বাংলা ট্রিবিউন

মন্তব্য