| প্রচ্ছদ

প্রস্তুতি নিচ্ছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা

শেরপুরে উপজেলা নির্বাচনের হাওয়া

আইয়ুব আলী, শেরপুর উপজেলা,বগুড়া
পঠিত হয়েছে ৫১১ বার। প্রকাশ: ০৮ জানুয়ারী ২০১৯ । আপডেট: ০৮ জানুয়ারী ২০১৯ ।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই বগুড়ার শেরপুরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া বইতে শুরু করেছে। বিগত ২০১৪সালের ১৯শে ফেব্রুয়ারি এই উপজেলায় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেই হিসেবে পরিষদের মেয়াদও প্রায় ফুরিয়ে আসছে। ফলে এরইমধ্যে আগামি মার্চে উপজেলা নির্বাচন নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এছাড়া দলীয় প্রতীকে এই নির্বাচন হবে বলেও কমিশনের পক্ষ থেকে আভাস দেয়া হয়েছে। তাই নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার পাশাপাশি দলীয় মনোনয়ন পেতে তোড়জোড় শুরু করেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। তবে জাতীয় নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বিএনপির নেতাকমীরা চুপ থাকলেও অন্যদলের প্রার্থীরা বসে নেই। বিশেষ করে আওয়ামীলীগের অনেক নেতাই প্রার্থী হওয়ার বিষয়ে জানান দিচ্ছেন। জোর প্রস্তুতি নিতেও দেখা যাচ্ছে তাঁদের। এরই ধারাবাহিকতায় দলীয় নেতাকর্মীসহ এলাকার জনগণের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। এসব নেতাদের কর্মী-সমর্থকরাও বসে নেই। পছন্দের প্রার্থীর নামে শুভেচ্ছা ব্যানার ও পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে কৌশলে প্রচারণা চালাচ্ছেন তারা। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও (ফেসবুক) একই কায়দায় প্রচার-প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হওয়ার আগেই চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর তদবির শুরু করেছেন। পাশাপাশি মাঠেও নেমেছেন তাঁরা। নিজ নিজ দলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে গণসংযোগসহ দোয়া প্রার্থনা করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ফলে এই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে নির্বাচনী আমেজ তৈরী হয়েছে। তাই এসব প্রার্থীদের নিয়ে চা-স্টলসহ সর্বত্রই চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তাঁরা হলেন- বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মজিবর রহমান মজনু, স্থানীয় এমপি আলহাজ¦ হাবিবর রহমানের ভাই আ.লীগ এড. তোজাম্মেল হক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ¦ মুনসী সাইফুল বারী ডাবলু, এড. গোলাম ফারুক, সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব আম্বীয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহজামাল সিরাজী, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মকবুল হোসেন। এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে এড. আজমী আরা পারভীন শান্তনা, সাবেক পৌরসভার কাউন্সিলর শিল্পী বেগম, এড. রেজাউল করিম মজনু, বদরুল ইসলাম পোদ্দার ববি, যুবলীগ নেতা এমএ হান্নান, শামীম ইফতেখার শামীম ও সুলতান মাহমুদ। অন্যদিকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সিদ্ধান্তহীনতায় থাকলেও চেয়ারম্যান পদে বগুড়া জেলা বিএনপির উপদেষ্টা ও শেরপুর উপজেলা বিএনপি আহবায়ক জানে আলম খোকা, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কেএম মাহবুবার রহমান হারেজ, জামায়াত সমর্থিত বর্তমান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান  দবিবুর রহমানের নাম শোনা যাচ্ছে। আর ভাইস চেয়ারম্যান পদে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শ্রমিক নেতা আরিফুর রহমান মিলন, রফিকুল ইসলাম মিন্টু, জামায়াতের এড. এমএ হালীম, মাওলানা আব্দুস সাত্তার ও লুৎফুন ইসলাম। এছাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টির (এরশাদ) নুরুজ্জামান বারী মিথুন, ওমর ফারুক, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মীর মাহমুদুর রহমান চুন্নু, ইমরান কামাল, কমিউনিস্ট পার্টির হরিশংকর সাহা, বাসদের রঞ্জন কুমার দে, জাসদের (ইনু) রাসেল মাহমুদ প্রার্থী হতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। এদিকে উপজেলা নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলা নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও ব্যস্ত সময় পার করছেন। জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামি মার্চেই এই উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল হবে। তাই নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করছেন। ভোটগ্রহণের যাবতীয় কাজগুলো ধীরে ধীরে সম্পন্ন করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, এই উপজেলায় বর্তমান ভোটার সংখ্যা ২লাখ ৫৪হাজার ৩৬৯জন। এরমধ্যে ১লাখ ২৩হাজার ৯১৬জন পুরুষ ও ১লাখ ৩০হাজার ৪৫৩জন মহিলা ভোটার রয়েছেন বলে এই কর্মকর্তা।

মন্তব্য