| প্রচ্ছদ

নওগাঁয় ক্লিনিকের সেবিকা তানিয়ার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন ও সুষ্ঠ বিচার দাবিতে মানববন্ধন

নওগাঁ প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২০ ১৭:৪২:০৯ ।

নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার নজিপুর ইসলামিয়া ক্লিনিকের কর্মরত সেবিকা তানিয়া আকতার মিম(২০) এর মৃত্যু রহস্য গত তিন দিনেও উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। এদিকে তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করে বিবস্ত্র অবস্থায় তার লাশ ঝুলিয়ে রাখার অভিযোগে শনিবার বেলা ১১টার দিকে ধামইরহাট উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থী,অভিভাবক ও এলাকাবাসী। 
ধামইরহাট সরকারি এম এম ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী রাজু ইসলামের নেতৃত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মো. জাবিদ হোসেন মৃদু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এডভোকেট আইয়ুব হোসেন, তানিয়া আকতার মিমের মা শম্পা আকতার, উপজেলা প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান, চাচাতো বোন সাদিয়া সুলতানা, সাংবাদিক হারুন আল রশীদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সুফিয়ান হোসাইন, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাসুদ রানা ফারুক, ছাত্রনেতা মাহবুব আলম রাজ প্রমুখ।
বক্তাদের অভিযোগ তাকে ধর্ষণ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে আত্নহত্যা বলে চালিয়ে চেয়ার চেষ্টা করছে ওই ক্লিনিকের মালিক নিজামুদ্দিন বাবু। অভিযোগ রয়েছে, ওই ক্লিনিকে নিয়োগ পূর্ব শর্ত হচ্ছে সুন্দরী মেয়ে হতে হবে, আর এসব সুন্দরী মেয়েকে, কখনো, নার্স, কখনো রিসিপশনিস্ট ও ভালো লোভনীয় পদ-পদবীর লোভ দেখিয়ে তাদের নিয়োগ দেওয়া হয়। আর এসবের আড়ালে ওই ক্লিনিকে চলতো অসামাজিক কর্মকান্ড। তানিয়া এসবের প্রতিবাদ করায় তাকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে। তারা বলেন এখন পর্যন্ত পুলিশ এই মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি। এমনকি ওই ক্লিনিক মালিককে আটকও করেনি। উল্টো এই ঘটনায় হত্যা মামলা দাযের করতে চাইলে পুলিশ তার পিতার কোন অভিযোগ আমলে নেই। তানিয়ার মৃত্য রহস্য দ্রুত উদঘাটন ও সুষ্ঠ বিচার দাবি জানান বক্তারা।    
সরকারি এম এম কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী তানিয়া আকতার মিম লেখাপড়া পাশাপাশি ওই ক্লিনিকে সেবকিার কাজ করে আসছিল। গত ১৮ নভেম্বর ক্লিনিকের একটি কক্ষ থেকে পুলিশ  বিবস্ত্র অবস্থায় তানিয়ার লাশ উদ্ধার করে। 
এব্যাপারে পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুল আলম শাহ জানান যেহেতু সব দিক থেকে বদ্ধ ক্লিনিকের একটি কক্ষ থেকে লাশটি উদ্ধার করার কারনে প্রাথমিকভাবে ইউডি মামলা দাযের করে লাশ ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করাহয়েছে। রির্পোট পেলেই তানিয়ার প্রকৃত কারণ জানা যাবে। এরপরেও ঘটনাটি গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে।

 

মন্তব্য