| প্রচ্ছদ

মুক্তবুদ্ধি ও প্রগতিশীল চেতনার বাতিঘর শ্যামল ভট্টাচার্য্যের স্মরণ সভা

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ২১ নভেম্বর ২০২০ ২১:০৭:০০ ।

সদ্যপ্রয়াত প্রবীণ শিক্ষক, অসাম্প্রদায়িক-মুক্তবুদ্ধি ও প্রগতিশীল চেতনার বাতিঘর শ্যামল ভট্টাচার্য্যের স্মরণ সভা শনিবার বিকেলে বগুড়া মফিজ পাগলা মোড়স্থ ম্যাক্স মোটেলে অনুষ্ঠিত হয়। বগুড়া নাট্যদলের সভাপতি মির্জা আহসানুল হক দুলালের সভাপতিত্বে ও বাঙ্ময় আবৃত্তি চক্রের সাধারণ সম্পাদক দৌলতুজ্জামের সঞ্চালনায় স্মরণ সভায় আলোচনা করেন শ্যামল ভট্টাচার্য্যের সহধর্মিণী সুকৃতি ভট্টাচার্য্য, কনিষ্ঠ পুত্র অভ্র ভট্টাচার্য, প্রবীণ নাট্যব্যক্তিত্ব আইয়ুব উদ্দীন আহমেদ, বাঙ্ময় আবৃত্তি চক্রের সভাপতি ও পুলিশ লাইন্স স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহাদাৎ আলম ঝুনু, বগুড়া নাট্যদলের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমান, আনন্দ কণ্ঠের পরিচালক এ বি এম জিয়াউল হম বাবলা, অনুশীলন ৯৫-এর সভাপতি মনোয়ারুল ইসলাম, দৈনিক করতোয়ার বার্তা সম্পাদক প্রদীপ ভট্টাচার্য শঙ্কর, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট বগুড়ার সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সিদ্দিকী, প্রবীণ রাজনীতিবিদ বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহফুজুল হক দুলু, নান্দনিক নাট্যদলের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান, বগুড়া নাট্য গোষ্ঠীর সভাপতি সুলতান আহমেদ, বিহঙ্গ আবৃত্তি পরিষদের শেখ মাসুকুর রহমান শিহাব, চর্চা একাডেমির পরিচালক আব্দুল আউয়াল প্রমুখ। আলোচকবৃন্দ বলেন, শ্যামল ভট্টাচার্য্য ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার বাতিঘর। তিনি তার শিক্ষকতা জীবনে ছড়িয়ে গেছেন প্রগতিশীল চিন্তার বীজ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতি আজীবন আস্থাশীল শ্যামল ভট্টাচার্য্য তার সমগ্র জীবন বিলিয়ে গেছেন সাংস্কৃতিক পরিমণ্ডলের জন্য। তার অবদানের ফলে শুধু বগুড়া নয় সারা দেশেই বিভিন্ন স্থানে সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক সংগঠক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে উঠেছে এবং আজো সারা দেশে আলো ছড়িয়ে যাচ্ছে। শ্যামল ভট্টাচার্য্যের এই অবদান বগুড়ার সাংস্কৃতিক অঙ্গন সারাজীবন কর্মের মাধ্যমে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ রাখবে। আলোচকবৃন্দ শ্যামল ভট্টাচার্য্য মতো ব্যক্তিত্বের স্মরণে বগুড়ায় একটা সড়কের নামকরণের জন্যও দাবি জানান।

মন্তব্য