| প্রচ্ছদ

ধোনীর ব্যাটে সিরিজ জয় ভারতের

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৭ বার

যন্ত্রগণকে দলের রান ফেলে গুন-ভাগ করে ম্যাচজয়ী এক ইনিংস খেলেছেন মাহেন্দ্র সিং ধোনী। কে কখন বল করবেন, কার কোন ওভারে কত রান নেবেন সব যেন আগে থেকে হিসেবে করে নেমেছিলেন তিনি। মাঠে ঠিক সেভাবেই খেলেছেন। তার দারুণ ইনিংসে ভর করে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের শেষ ওয়ানডে ম্যাচে ৭ উইকেটের জয় পেয়েছে ভারত। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ কোহলির ভারত নিশ্চিত করেছে ২-১ ব্যবধানে।

এর আগে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-২০ সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হয় ধোনীকে। তা নিয়ে তো কথা আর কম হয়নি। ধোনীকে বাদ দেওয়ার পায়তারা চলছে। ধোনীর ফর্ম শেষ। বিশ্বকাপ দলে জায়গা হচ্ছে না ধোনীর। কত্তোকথা। ধোনী সেসবে কান দেননি। কিংবা ধোনী দেখিয়ে দিতে চেয়েছিলেন তিনি ফুরিয়ে যাননি। কারণ হয়তো হবে কিছু একটা। তবে দ্বিতীয় এবং শেষ ওয়ানডে ম্যাচে দারুণ ইনিংস খেলে দলকে জিতিয়ে ধোনী জানিয়ে দিলেন, লিজেন্ডদের কখনো প্রমাণের কিছু থাকে না।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শুক্রবার সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে এমসিজি'তে প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া। হাতে ৪ বল থাকতে যুজবেন্দ্র চাহালের দুর্দান্ত ঘূর্ণিতে ২৩০ রানে অলআউট হয়ে যায় অজিরা। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতেও যে স্পিন ভেলকি দেখানো যায় লেগ স্পিনার চাহাল তার প্রমাণ দিয়েছেন। নিজের ১০ ওভারে ৪২ রানে ৬ উইকেট দখলে নিয়েছেন এই তারকা। এছাড়া পেসার মোহাম্মদ শামি এবং ভুবনেশ্বর কুমার দুটি করে উইকেট নেন।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে হ্যান্ডসকম্ব ৫৮ রান করেন। এছাড়া শন মার্শ ৩৯ এবং উসমান খাজার ব্যাট থেকে আসে ৩৪ রান। ওই রান তাড়া করতে নেমে ১৫ রানে ফিরে যান প্রথম ম্যাচে সেঞ্চুরি পাওয়া রোহিত শর্মা। এরপর ৫৯ রানে শেখর ধাওয়ান এবং ১১৩ রানে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি ফিরে যান। পরের পথটা কেদার যাদবকে নিয়ে পাড়ি দেন মাহেন্দ্র সিং ধোনী।

তিনি ১১৪ বলে ৮৭ রানের হিসেব করা এক ইনিংস খেলেছেন। দারুণ ওই ইনিংস খেলতে চার মেরেছেন মাত্র ছয়টি। এমসিজি' স্টেডিয়ামে ছক্কা মারা তো মুখের কথা নয়। তবে দম থাকলে সিঙ্গেল-ডাবলে ম্যাচ শেষ করে ফেরা যায়। ধোনী সেই পথেই হাটেন। তার সঙ্গী কেদার যাদব খেলেন হার না মানা ৫৭ বলে ৬১ রানের ইনিংস। তিনি চার মারের সাতটি। ভারত কিংবা অস্ট্রেলিয়ার কেউ এ ম্যাচে ছক্কা মারেননি। 

ধোনীরা অবশ্য মাঝারি লক্ষ্যটা ছুঁতে শেষ ওভার পর্যন্ত খেলেছেন। তবে জয়টা পেয়েছেন বড়। দারুণ ওয়ানডে সিরিজ খেলায় সিরিজ সেরা হয়েছেন তিনি। আর ছয় উইকেট দখলের পর ম্যাচ সেরা যে চাহাল হবেন তাতে সন্দেহ থাকার কথা নয়।

মন্তব্য