| প্রচ্ছদ

কৃষি শ্রমিকের মজুরী বেশি, ধানের নায্যমূল্য চায় কৃষক

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ১৪২ বার। প্রকাশ: ২২ জানুয়ারী ২০১৯ । আপডেট: ২২ জানুয়ারী ২০১৯ ।

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় বর্তমানে বোরো ধান চাষে কৃষক ব্যস্ত সময় পার করছে। তবে কৃষি শ্রমিকের সংকট ও শ্রমিকের মজুরী বেশি হওয়ায় বিপাকে রয়েছে বোরো চাষীরা। বর্তমান বাজারে ধানের মূল্য কম হওয়ায় ক্ষুব্ধ কৃষক বোরো’র নায্যমূল্য দাবী করেছেন।
উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, বিগত বছরে ধুনট উপজেলায় ১৬হাজার ১০০হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ হয়েছে। এ বছর ১৬হাজার ২০০হেক্টর জমিতে বোরো চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ডিসেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে ধুনট উপজেলায় বোরো ধান চাষ শুরু করেছে কৃষক। মঙ্গলবার পর্যন্ত প্রায় ৩হাজার হেক্টর জমিতে ১০হাজার কৃষক বোরো ধানের চারা রোপন করেছেন। ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝিতে শেষ হবে বোরো চারা রোপন। আগামী এপ্রিল মাসের শেষ সপ্তাহে বোরো ধান কাটা শুরুর সম্ভাবনা রয়েছে।
মঙ্গলবার ধুনট হাটে ধান বিক্রি হয়েছে ৭০০ থেকে ৭৫০টাকা মন দরে। কৃষকের চাহিদার তুলনায় ধানের বর্তমান বাজার মন্দা। এরইমধ্যে চলছে বোরো ধান রোপন। ধানের বাজারে মন্দা থাকলেও কমছে না বোরো ধান চাষ। কিন্তু চাষাবাদে কৃষি শ্রমিকের সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়া কৃষি শ্রমিকের মজুরী বৃদ্ধি পেয়েছে। সোমবার ধুনটে দৈনিক ৪০০টাকা হাজিরায় কাজ করেছেন কৃষি শ্রমিকরা। বোরো ধান রোপনে শ্রমিকের স্বাভাবিক মজুরী ৩০০টাকা। কৃষি শ্রমিকের মজুরী বৃদ্ধির ফলে বোরো চাষে কৃষকের ব্যয় বাড়ছে। এজন্য বোরো ধানের নায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন কৃষকরা।
উপজেলার নান্দিয়ারপাড়া গ্রামের কৃষক তবিবর রহমান জানান, কৃষি শ্রমিকের সংকট রয়েছে। শ্রমিক মিললেও তাদের ১০০টাকা বেশি মজুরী দিতে হচ্ছে। এতে বোরো চাষের ব্যয় বাড়ছে।
উপজেলার সরুগ্রামের বোরো চাষী রাশেদুল ইসলাম বলেন, বর্তমান বাজারে ধানের মূল্য কম। কমদামে ধান বিক্রি করে সেই টাকায় বোরো চাষের ব্যয় নির্বাহ করছি। অথচ শ্রমিকের মূল্য বেশি হওয়ায় ব্যয় বাড়ছে। বোরো ধানের নায্যমূল্য নিশ্চিত করতে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।
ধুনট উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বোরো ধানের ৪৫ দিন বয়সী চারা কৃষক রোপন করতে পারেন। চলতি মৌসুমে চাহিদার তুলনায় দেড়শো হেক্টর বেশি জমিতে বীজতলা তৈরী করা হয়। যার ফলে বোরো চাষে চারা সংকট নেই। বোরো চাষে লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলে বোরো ধান উৎপাদনে কৃষক সাফল্য পাবেন।

মন্তব্য