| প্রচ্ছদ

কর বাড়ানো হবে না বরং ব্যয় হ্রাস করার আশ্বাস

বগুড়া পৌরসভায় মেয়র পদে বিএনপি প্রার্থী বাদশার ৩৫ দফা উন্নয়ন প্রতিশ্রুতি

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে বার। প্রকাশ: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৪:২২:৩৭ ।

বগুড়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম বাদশা কর না বাড়িয়ে নাগরিক সেবার মান বৃদ্ধি এবং যানজট নিরসনে পরিবহন সার্ভিস চালুর প্রতিশ্রæতি দিয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বগুড়া প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি ৩৫ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন।
এক প্রশ্নের জবাবে রেজাউল করিম বাদশা বলেন, ঘোষিত উন্নয়ন প্রতিশ্রæতি বাস্তবায়নে সরকারের সহয়তার প্রয়োজন। এজন্য তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবেন। তিনি বলেন, ‘যদিও আমি একটি দলের প্রার্থী কিন্তু নির্বাচিত হলে তখন আমি সবার মেয়র। আর সরকারও কোন দলের থাকে না।’
বগুড়া জেলা বিএনপির সাবেক সভপাতি রেজাউল করিম বাদশা এর আগে ১৯৯৪ সালেও একবার পৌরসভা নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছিলেন। অবশ্য নির্দলীয় সেই নির্বাচনে তৎকালীন চেয়ারম্যান জহুরুল ইসলাম ২০ হাজারেরও বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। আর রেজাউল করিম বাদশা পেয়েছিলেন সাড়ে ১০ হাজার ভোট।
২৭ বছর পর দ্বিতীয়বার বিএনপির মনোনয়নে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›দ্বীতায় নেমেছেন রেজাউল করিম বাদশা। মেয়র প্রার্থী হিসেবে এবার তার নির্বাচনী ইশতেহারের মধ্যে রয়েছে- স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে বগুড়া পৌর পার্কে স্বাধীনতা চত্বর নির্মাণ, নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে পৌরসভায় ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু, পৌরসভাকে গতিশীল করতে ট্যাক্স বৃদ্ধি নয় বরং ব্যয় হ্রাস, দিনের বর্জ্য রাতে অপসারনের নিয়ম চালু, যানজট নিরসনে সাশ্রয়ী মূল্যে পৌর পরিবহন সার্ভিস প্রবর্তন, ছুটির দিনেও নাগরিক সেবা নিশ্চিত করতে জরুরী সেবা ও হট লাইন চালু,ফতেহ্ আলী, রাজাবাজারসহ পৌর হাট বাজারগুলোকে আধুনিক মার্কেটে পরিণত করা, প্রতিটি ওয়ার্ডে কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ, ফুটবল স্টেডিয়াম নির্মাণ, একাধিক খেলার মাঠ ও পার্ক নির্মাণ, নাগরিকদের সহায়তায় শহরে চাঁদাবাজি, জুয়া, ছিনতাই, ডাকাতি ও মাদকসহ সকল অসামাজিক কাজ প্রতিহত করা, গরীব ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য উপবৃত্তি প্রদান,  করতোয়া নদী খনন এবং দুই তীরের চলাচলের পথ নির্মাণ, বগুড়া শহরকে ব্যবসা ও বিনিয়োগ বান্ধব শহর হিসেবে গড়ে তোলা এবং পৌরসভকে সিটি কর্পোরেশনে রূপান্তর করতে দল-মত সকল মানুষকে সঙ্গে নিয়ে জনমত তৈরি করা।
সংবাদ সম্মেলনে রেজউল করিম বাদশা তর জয়ের ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ‘বগুড়া বিএনপির ঘাঁটি। এখানকার মানুষ ধানের শীষের ভক্ত। তাই আমি আশা করি ভোটাররা আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যদিও নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কেউ কেউ কালো টাকা ও খাদ্য সামাগ্রী বিতরণের মত অনৈতিক কাজ করে যাচ্ছেন। এসব অভিযোগ প্রশাসন ও নির্বাচন কর্মকর্তাদের জনানো হয়েছে। আশাকরি তারা পদক্ষেপ নিবেন। তাছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে ২৮ ফেব্রæয়ারি একটি মডেল নির্বাচন উপহার দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।
নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা উপলক্ষ্যে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ফজলুল বারী তালুকদার বেলাল, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, সাবেক সহ-সভাপতি আলী আজগর তালুকদার হেনা, আহসানুল তৈয়ব জাকিরসহ অর্ধমত নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য