| প্রচ্ছদ

৪ মাস আগেই পলাশকে ডিভোর্স দিয়েছি: শিমলা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৭২ বার

চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টায় গত রোববার কমান্ডো অভিযানে নিহত হয়েছে পলাশ আহমেদ ওরফে মাহিবী জামান, যাকে কেউ কেউ অভিনেত্রী শিমলার স্বামী বলে জানেন।

পলাশের বাবা পিয়ার জাহান সরদারের কথায় নায়িকা শিমলাকে নিয়ে একাধিকবার নারায়ণগঞ্জের বাড়িতে গিয়েছে তার ছেলে। সিমলাকে স্ত্রী হিসেবেই পরিচয় করিয়ে দিয়েছে পলাশ। পরিবারের সঙ্গে সময়ও কাটিয়েছে।

সে সময় পলাশের বাবা শিমলাকে বলেছিলেন, তোমার সঙ্গে পলাশের বয়সের এত ব্যবধান, কীভাবে আমার ছেলেটাকে বিয়ে করেছ? যাহোক, বিয়ে যেহেতু করেই ফেলেছ, আমার ছেলেটা যাতে ভালো হয়ে যায় সেদিকে খেয়াল রেখো।

পলাশের বাবার এ কথা অনুযায়ী স্পষ্ট, বয়সের পার্থক্য থাকলেও সিমলার সঙ্গে বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিল পলাশ। তার এ কথার আরও কিছুটা সত্যতা খুঁজে পাওয়া যায় পলাশের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের বিভিন্ন পোস্ট ও ছবি থেকে। বেশকিছু ছবিতে তাদের অন্তরঙ্গভাবেও দেখা গেছে।

বিয়ের প্রসঙ্গে এতদিন মুখ না খুললেও রোববারের ঘটনার পর সোমবার সন্ধ্যায় দেশের এক বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকারে শিমলা বলেন, 'পলাশের সঙ্গে আমার সম্পর্ক অনেক আগেই শেষ হয়েছে। চার মাস আগেই আমি তাকে ডিভোর্স দিয়েছি।'

পলাশের সঙ্গে পরিচয় প্রসঙ্গে তিনি জানান, ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পরিচালক রশিদ পলাশের জন্মদিনের আয়োজনে তাদের দেখা হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে প্রেম ও ২০১৮ সালের ৩ মার্চ তাদের বিয়ে হয়। ওই বছরেরই শেষদিকে ৬ নভেম্বর তাদের বিচ্ছেদ হয়।

কেন বিয়েবিচ্ছেদ- এমন প্রশ্নের জবাবে শিমলা বলেন, কিছু সমস্যা ছিল বলেই ডিভোর্স হয়েছে। তার মানসিক সমস্যাই এর মূল কারণ।

শিমলা আরও বলেন, আমি শুরুতে মাহিবী জাহান পলাশকে 'কবর' নামের স্বল্পদৈর্ঘ্যের প্রযোজক আর অভিনেতা হিসেবেই চিনতাম।

পলাশের উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টা, কমান্ডো অভিযানে নিহত হওয়া থেকে শুরু করে লাশের ময়নাতদন্ত হয়ে যাওয়া পর্যন্ত কোনো খবর শিমলার কাছে পৌঁছেছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সবই শুনেছি। সে যা করেছে তা অস্বাভাবিক। দেশের জন্য দুঃখজনক ও লজ্জার। এ জন্য যদি প্রয়োজন হয়, আমি দেশের জন্য যে কোনো কিছুতে রাজি।'  খবর সমকাল অনলাইন

মন্তব্য