| প্রচ্ছদ

নিষিদ্ধ হয়েও লেসবিয়ান লাভস্টোরির অ্যাওয়ার্ড জয়

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ১২০ বার। প্রকাশ: ০৪ মার্চ ২০১৯ । আপডেট: ০৪ মার্চ ২০১৯ ।

আফ্রিকার সবচেয়ে বড় ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে লেসবিয়ান লাভস্টোরি সিনেমাটি হয়েছে। অথচ এ নায়িকার নিজ দেশেই সিনেমাটি নিষিদ্ধ।

এ সিনেমায় কেনিয়ার একজন অভিনেত্রী লেসবিয়ান বা নারী সমকামীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন। সঙ্গত কারণেই নিজ দেশে আগেই নিষিদ্ধ হয়েছে সিনেমাটি।

সেই অভিনেত্রী সামান্থা মুগাতসিয়াই সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছেন ফেসপ্যাকো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে।

এটি আফ্রিকার সবচেয়ে বড় ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল হিসেবে স্বীকৃত এবং এবার সেটি অনুষ্ঠিত হচ্ছে বুরকিনা ফাসোতে।

সমকামিতাকে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে, এমন অভিযোগ তুলে গত বছরই এ ফিল্মটি নিষিদ্ধ করেছিল নায়িকা সামান্থার দেশ কেনিয়ার ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন বোর্ড।

দেশটিতে সমকামিতা পুরোপুরি অবৈধ। এ ছাড়া সমকামিতা প্রমাণিত হলে দেশটিতে ১৪ বছরের কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।

যদিও দেশটির হাইকোর্ট আগামী মে মাসে একটি রুল দেয়ার কথা যে নিষেধাজ্ঞাকে অবৈধ ঘোষণা করা হবে কিনা।

কেনিয়ার ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন বোর্ড আগেই সতর্ক করেছিল যে, এ সিনেমায় কাউকে দেখা গেলে সেটি আইনের লঙ্ঘন বলে বিবেচিত হতে পারে।

সিনেমাটির নাম রাফিকি, যার অর্থ বন্ধু।

সিনেমাটিতে দুই তরুণীর ভালোবাসার গল্পই উঠে এসেছে। তারা একে অন্যের সঙ্গে সাক্ষাতের পর একজন আরেকজনের প্রেমে পড়েছেন।

তাদের রোমান্স বা প্রেম ভালোবাসা ছিল হোমোফোবিয়ার বিরুদ্ধে; আবার তাদের দুজনের পরিবার ছিল দুই রাজনৈতিক মেরুর।

উগান্ডার লেখক মনিকা আরাক ডি এনইয়েকুর লেখা ছোট গল্প জাম্বুলা ট্রির ওপর ভিত্তি করেই সিনেমাটি তৈরি হয়েছে।

এ গল্পটি আগেই পুরস্কার জিতে নিয়েছিল।

মন্তব্য