| প্রচ্ছদ

নওগাঁর রাণীনগরে আ’লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থীর অভিযোগ

কাজী আনিছুর রহমান, রাণীনগর উপজেলা (নওগাঁ) সংবাদদাতা
পঠিত হয়েছে ৭৬ বার। প্রকাশ: ১৪ মার্চ ২০১৯ । আপডেট: ১৪ মার্চ ২০১৯ ।

নওগাঁর রাণীনগরে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন হেলালের কর্মীদের মারপিট, তার পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা এবং মাইকিংয়ের মাধ্যমে অপপ্রচারের অভিযোগ উঠেছে।  এ ব্যাপারে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও রাণীনগর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা রুহুল আমিনের কাছে বৃহস্পতিবার পৃথকভাবে চারটি লিখিত অভিযোগ জমা দেওয়া হয়েছে।

দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে উপজেলা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতায় অবতীর্ণ হওযায় রাণীনগর উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে আনোয়ার হোসেন হেলালসহ ৬জনকে গত ২ মার্চ দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। বহিষ্কারের ওই সিদ্ধান্ত জানিয়ে বুধবার রাত থেকে এলাকায় মাইকিং করা হয়। বৃহস্পতিবারও মাইকিং করা হয়।

আনোয়ার হোসেন দাবি করেন, মঙ্গলবার উপজেলার কুজাইল বাজারে প্রচারণাকালে ফিরোজ হোসেন নামের  তার একজন সর্মথক মোবাইল ফোনে তার সাথে ছবি তোলে । এ ঘটনার জের ধরে বুধবার নৌকা প্রতীকের লোকজন ফিরোজকে মারপিট করে। এছাড়া একডালা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় তার মোটর সাইকেল প্রতিকের পোষ্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন ছিড়ে ফেলা হয়েছে। পাশাপাশি মোটরসাইকেল প্রতিকের সর্মথক ও প্রচার প্রচারণাকারীদের মুঠো ফোনে ও প্রকাশ্যে হুমকি দেয়া হচ্ছে । তিনি আরও অভিযোগ করেন, নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ও তার লোকজন তাদের পরাজয় জেনে এলাকার নির্বাচনী পরিবেশকে অসুস্থ্য ও জনমনে আতংক সৃষ্টির লক্ষে নির্বাচনী আচরণ বিধি ভঙ্গ করে রাণীনগর উপজেলা আওয়ামীলীগ থেকে তাকে (আনোয়ার হোসেন হেলাল) বহিষ্কার করার বিষয়ে মাইক ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে “মিথ্যে” প্রচার প্রচারণা করছে। তিনি বলেন,  এ বিষয়ে আমি আজ ( বৃহস্পতিবার) দুপুরে সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা বরাবর একযোগে ৪টি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছি।’

তবে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আনোয়ার হোসেন জানান, ‘অভিযোগগুলো মিথ্যা। রাণীনগর উপজেলার কোথাও কোন মারপিট বা পোষ্টার ছেরার ঘটনা ঘটেনি।’ অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে রাণীনগর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটানিং কর্মকর্তা রুহুল আমিন চারটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, অভিযোগগুলো জেলা রিটানিং বর্মকর্তার কাছে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

মন্তব্য