| প্রচ্ছদ

ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে দামি একাদশ: দাম ১.১৫৯ বিলিয়ন ইউরো

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৯৩ বার

বিশ্বের সব পজিশনের দামি খেলোয়াড় যদি একদলে খেলতেন, তাহলে? সেই কোচের মতো ভাগ্যবান কে-ই বা হতেন। এমনই একটি দল তৈরি করেছে মাদ্রিদভিত্তিক ক্রীড়া দৈনিক ‘মার্কা’। বিশ্বের দামি খেলোয়াড়দের একসঙ্গে রেখে তারা সাজিয়েছে একাদশে। ট্রান্সফার মার্কেটে যে একাদশের দাম ১.১৫৯ বিলিয়ন ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় অঙ্কটা ১০ হাজার ৯৬৩ কোটি টাকা মাত্র!

 

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, নেইমার, ফিলিপে কৌতিনিয়ো, পল পগবা রয়েছেন ৩-৪-৩ ছকে সাজানো এই একাদশে। যেখানে নতুন যোগ দিয়েছেন দিনদুয়েক আগে অ্যাতলেতিকো থেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোতে বায়ার্ন মিউনিখে নাম লেখানো লুকা এরনন্দেজ।

তবে লিওনেল মেসি নেই বিশ্বের সবচেয়ে দামি একাদশে। থাকার কথাও নয়। কারণ ছোট্টবেলায় ফ্রি ট্রান্সফারে বার্সেলোনার একাডেমি লা মাসিয়ায় যোগ দেওয়ার পর আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড যাননি কোথাও। একাদশটি সাজানো হয়েছে যেহেতু ট্রান্সফারের অঙ্কের ওপর ভিত্তি করে, তাই মেসির না থাকাটাই স্বাভাবিক।

বিশ্বের দামি একাদশে সবচেয়ে বেশি খেলোয়াড় ফ্রান্সের। ইউরোপের দেশটি থেকে আছে চার খেলোয়াড়, এছাড়া ব্রাজিল ও নেদারল্যান্ডের দুজন, আর একজন ‍করে আছে কলম্বিয়া, স্পেন ও পর্তুগালের।

গোলরক্ষক:

৩-৪-৩ ছকে সাজানো একাদশে ‍গোলবারের নিচে রয়েছেন কেপা আরিসাবালাগা। গত গ্রীষ্মে অ্যাথলেতিক বিলবাও থেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরোতে এই স্প্যানিশ গোলরক্ষককে কিনেছে চেলসি। যাতে রোমা থেকে ৬২.৫ মিলিয়ন ইউরোতে লিভারপুলে নাম লেখানো আলিসনের দলবদলের রেকর্ড ভেঙেছে ব্লুরা।

ডিফেন্ডার:

বিশ্বের সবচেয়ে দামি ডিফেন্ডার হয়ে সাউদাম্পটন থেকে লিভারপুলে যোগ দিয়েছেন ভারগিল ফন ডিক। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে ৮৫ মিলিয়ন ইউরোতে ডাচ ডিফেন্ডারকে কিনেছে অলরেডস। রক্ষণভাগে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দামি খেলোয়াড় এখন লুকা এরনন্দেজ। দিন দুয়েক আগে অ্যাতলেতিকো থেকে ৮০ মিলিয়ন ইউরো ট্রান্সফারে এই ফরাসি নাম লিখিয়েছেন বায়ার্নে। তৃতীয় দামি ডিফেন্ডার আইমেরিক লাপোর্তে। ফরাসি ডিফেন্ডার ২০১৮ সালে বিলবাও থেকে যোগ দিয়েছেন ম্যানচেস্টার সিটিতে।

মিডফিল্ডার:

মাঝমাঠের সবার আগে নামটা আসবে ফিলিপে কৌতিনিয়োর। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে লিভারপুল থেকে ১২০ মিলিয়ন ইউরোর সঙ্গে আনুষঙ্গিক আরও ৪০ মিলিয়ন ইউরোতে বার্সেলোনায় যোগ দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান মিডফিল্ডার। পরের জায়গায় পল পগবা। ২০১৬ সালের আগস্টে জুভেন্টাস থেকে ফরাসি মিডফিল্ডার ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফেরেন ১০৫ মিলিয়ন ইউরোতে।

কৌতিনিয়ো ও পগবার চেয়ে দাম অনেকটা কম হলেও মাঝমাঠে তাদের সঙ্গী ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং ও হামেস রোদ্রিগেস। দুজনই দলবদল করেছেন ৭৫ মিলিয়ন ইউরোতে। ডি ইয়ং এই গ্রীষ্মেরই যোগ দিতে যাচ্ছেন বার্সেলোনায়। আর ২০১৪ সালে বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের পর মেনাকো থেকে কলম্বিয়ান তারকা নাম লিখিয়েছিলেন রিয়াল মাদ্রিদে।

আক্রমণভাগে রয়েছেন সময়ের সেরা তিন তারকাফরোয়ার্ড:

আক্রমণভাগটা বিশ্বের যে কোনও কোচের জন্য চরম আকাঙ্ক্ষিত। সাজানো হয়েছে নেইমার, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো ও কাইলিয়ান এমবাপেকে নিয়ে। ব্রাজিলিয়ান তারকা ২০১৭ সালের গ্রীষ্মে বার্সেলোনা থেকে দলবদলের বিশ্বরেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরোতে পাড়ি দেন প্যারিস সেন্ত জার্মেইয়ে। একই সময় মোনাকো থেকে ১৩৫ মিলিয়ন ইউরোতে এমবাপেকে কিনে আনে পিএসজি। তাদের সঙ্গে আক্রমণভাগকে আরও ধারালো করেছেন রোনালদো। গত গ্রীষ্মেই তিনি রিয়াল থেকে ১১৭ মিলিয়ন ইউরোতে যোগ দিয়েছেন জুভেন্টাসে।

একাদশ: কেপা; লুকা এরনন্দেজ, ভারগিল ফন ডিক, আইমেরিক লাপোর্তে; ফিলিপে কৌতিনিয়ো, পল পগবা, ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ং, হামেস রোদ্রিগেজ; নেইমার, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, কাইলিয়ান এমবাপে।   

বেঞ্চ:

এদের বাইরে আরও খেলোয়াড় আছেন, যাদের ইউরোর ঝনঝনানিতে দলে ভিড়িয়েছে ক্লাবগুলো। এরপরও তাদের জায়গা হয়েছে বেঞ্চে।

যেখানে সবার আগে নামটা আসবে উসমান দেম্বেলের, বার্সেলোনায় তিনি এসেছেন ১০৫ মিলিয়ন ইউরোতে। এরপর রয়েছেন গ্যারেথ বেল (১০১ মিলিয়ন ইউরো), গনসালো হিগুয়েইন (৯০ মিলিয়ন ইউরো), জিনেদিন জিদান ও আনহেল দি মারিয়া (৭৫ মিলিয়ন ইউরো), বেঞ্জামিন মেন্দি (৫৮ মিলিয়ন ইউরো) এবং আলিসন (৬২.৫ মিলিয়ন ইউরো)। মার্কা

মন্তব্য