| প্রচ্ছদ

ঘুমের মধ্যে গলা শুকিয়ে যাওয়া রোগের প্রাথমিক একটি লক্ষণ হতে পারে। 

রাতে বার বার পানি খেতে ওঠেন? এসব রোগ হানা দিচ্ছে না তো?

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬৩ বার। প্রকাশ: ১০ এপ্রিল ২০১৯ । আপডেট: ১০ এপ্রিল ২০১৯ ।

ঘুমোনোর পরেও শান্তি নেই। যতই জল খেয়ে ঘুমোন, মাঝ রাতে বার বার গলা শুকিয়ে কাঠ হচ্ছে। বার বার উঠে জল খেতে গিয়ে তাই ঘুমটাই হচ্ছে না। রোজই যদি এমন হতে থাকে, তা হলে শীঘ্রই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে। 

ঘুমের মধ্যে গলা শুকিয়ে যাওয়া প্রাথমিক একটি লক্ষণ হতে পারে। চিকিৎসকদের মতে, এমন কিছু রোগ রয়েছে, যেগুলির কবলে পড়লেই এই প্রবণতা দেখা যায়।

ডিহাইড্রেশন বা বদহজম যেমন এর অন্যতম কারণ। শরীরে যখন জলের মাত্রা কমে যায় তখনই গলা শুকোতে থাকে। শিশুদের ক্ষেত্রে ডিহাইড্রেশন কিন্তু মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হতে পারে। বেশি ঘাম হওয়া, পেট খারাপ ইত্যাদির জেরেও ডিহাইড্রেশন হতে পারে। তবে হজমের সমস্যা ছাড়াও বেশ কিছু অসুখের কারণেও ঘুমের মধ্যে গলা শুকোয়। এখনই সাবধান হোন সে সব সম্পর্কে।

 

অতিরিক্ত তেল-মশলা যুক্ত খাবার খেলে বার বার গলা শুকোয়।

  • ডায়াবিটিসের একটি অন্যতম উপসর্গ হল গলা শুকিয়ে যাওয়া। অতিরিক্ত পরিমাণে মূত্রের জেরে শরীরে জলের সমতা থাকে না। ফলে গলা শুকোয়।
  • সেপসিস-এর মতো ভয়ানক রোগেরও উপসর্গ এটি। বিভিন্ন ধরনের জীবাণু থেকে শরীরে ইনফেকশনের ফলে এমন প্রভাব পড়ে যে গলা প্রায় শুকিয়ে যায়।
  • হার্ট, কিডনি অথবা লিভার তার কার্যক্ষমতা হারাতে শুরু করলেও এই সমস্যাগুলি হতে পারে।
  • যাঁরা অবসাদে ভোগেন তাঁদের মধ্যে এই প্রবণতা দেখা যায়।
  • উচ্চ রক্তচাপে ভুগলে তাঁদের অতিরিক্ত ঘাম হওয়ায় শরীরে জলের মাত্রা ঠিক থাকে না। ফলে গলা শুকিয়ে যায়।

তবে এই রোগগুলি ছাড়াও আরও কয়েকটি প্রাথমিক

কারণে রাতে গলা শুকনোর প্রবণতা দেখা যায়। অতিরিক্ত তেল-মশলা যুক্ত খাবার খেলে বার বার গলা শুকোয়। সর্দি হলে বা নাক বন্ধ থাকলে মুখ দিয়ে নিঃশ্বাস নেওয়ার প্রবণতা দেখা যায়। ফলে সহজেই মুখের ভিতর শুকিয়ে যায়। এ ছাড়া অতিরিক্ত মদ্যপান যারা করেন তাদেরও বেশি মাত্রায় জল তেষ্টা পায়। অ্যালকোহল শরীরকে শুষ্ক করে তোলে ও জলের চাহিদা তৈরি করে।

মন্তব্য