| প্রচ্ছদ

ডায়াবেটিসের লক্ষণ দেখা দিলে করণীয়

সমকাল অনলাইনঃ
পঠিত হয়েছে ২৪৪ বার। প্রকাশ: ২০ অগাস্ট ২০১৮ । আপডেট: ২০ অগাস্ট ২০১৮ ।

গোটা বিশ্বে দিন দিন ডায়াবেটিস রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, বংশগত এবং পারিবারিক ইতিহাসের কারণে বেশিরভাগ মানুষ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন। এটা এমনই এক নীরব ঘাতক যা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে কিডনি, হৃদরোগ সম্পর্কিত জটিলতা ,অন্ধত্ব এবং অন্যান্য শারীরিক সমস্যা তৈরি হয়। ডায়াবেটিস হওয়ার আগে শরীরে বিভিন্ন সংকেত দেখা দেয়। এ কারণে শরীরে ডায়াবেটিসের লক্ষণ বা প্রি ডায়াবেটিস দেখা দিলেই সাবধান থাকা উচিত। 

১. নিয়মিত ব্যয়াম অথবা শরীরচর্চা করলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে যায়। নিয়মিত ব্যয়ামে শরীরে ইনসুলিন তৈরি হয়। এতে রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে।

২. ডায়াবেটিস প্রতিরোধে চিনি এবং প্রক্রিয়াজাত খাবার খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিতে হবে। যারা বেশি চিনি মিশ্রিত ও প্রক্রিয়াজাত খাবার খান তাদের ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। 

৩. যাদের ওজন বেশি তাদের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেশি। এ কারণে ওজন নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করুন। যাদের ওজন বেশি প্রি ডায়াবেটিস দেখা দিলেও তা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। এজন্য নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে। সেই সঙ্গে প্রোটিণ, ফাইবার মিশ্রিত খাবার খেতে হবে। 

৪.  ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে খাবার খেতে হবে পরিমিত ভাবে। একবারে বেশি খাবার খেলে রক্তে শর্করা ও ইনসুলিনের পরিমাণ বেড়ে যায়। এতে ডায়াবেটিসের ঝুঁকিও বাড়ে। গবেষণায় দেখা গেছে, পরিমিত খাবার খেলে রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে। এ কারণে একবারে বেশি না খেয়ে অল্প অল্প করে বিরতি দিয়ে খাবার খান। 

৫. পর্যাপ্ত পানি পান করলে শরীর থেকে টক্সিন বের হতে সাহায্য করে। এতে একদিকে যেমন ওজন কমে, তেমনি ডায়াবেটিসও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

৬.  গবেষণায় দেখা গেছে, ধূমপানের কারণে টাইপ টু ডায়াবেটিস হওয়ার আশঙ্কা থাকে। এজন্য ডায়াবেটিস এড়াতে ধূমপান পরিহার করুন।

৭. পরিমিত খাবার, পর্যাপ্ত পানি পান , নিয়মিত ব্যয়াম ছাড়াও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে শরীর সক্রিয় রাখা উচিত। এজন্য হাঁটাহাটি, লিফটের পরিবর্তে সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা -এগুলো করা দরকার। এতে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমে। 

৮. প্রক্রিয়াজাত খাবারে উচ্চ পরিমাণে প্রিজারভেটিভ এবং সোডিয়াম দেওয়া থাকে। এগুলো উচ্চ রক্তচাপ বাড়ায়। সেই সঙ্গে হৃদরোগ, স্থূলতা এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেড়ে যায়। এসব প্রক্রিয়াজাত খাবারে ক্ষতিকর ফ্যাট থাকে যা শরীরের জন্য মারাত্মক হুমকির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এজন্য প্রি ডায়াবেটিস দেখা দিলে এসব খাবার দ্রুত পরিহার করা উচিত।

মন্তব্য