| প্রচ্ছদ

ঢিলে ক্ষতবিক্ষত ‘বনলতা এক্সপ্রেস’, নেটিজেনদের ক্ষোভ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৭৫ বার। প্রকাশ: ২৮ এপ্রিল ২০১৯ । আপডেট: ২৮ এপ্রিল ২০১৯ ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের পর বৃহস্পতিবার ঢাকা-রাজশাহী রুটে বিরতিহীন ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনটির যাত্রীসেবা শুরু হয়েছে। ব্যস্ততম এই রুটে বিরতিহীন ট্রেন পেয়ে উচ্ছ্বসিত যাত্রীরা।

কিন্তু উদ্বোধনের দু’দিন যেতে না যেতেই ঢিল ছুঁড়ে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের নিয়ন আলোর ডিজিটাল নেমপ্লেট ভেঙে ফেলাসহ ট্রেনের আরও ক্ষতি করা হয়েছে।

এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেটিজেনরা। তাদের প্রশ্ন- দেশের সম্পদের ক্ষতি করে তারা কী বিকৃত আনন্দ পায়।

ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানিকৃত নতুন সব সুবিধাযুক্ত ট্রেনের কোচগুলো কিছুদিন আগেই দেশে এসেছে। ব্রডগেজ কোচগুলোর বাইরে এবং ভেতরে আছে ডিজিটাল নেমপ্লেট।

বৃহস্পতিবার উদ্বোধনের পর শনিবার ছিল ট্রেনটির প্রথম যাত্রা। ঢিলের আঘাতে চুরমার হয়ে গেছে বনলতার ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ড। চিড় ধরেছে জানালার কাঁচে। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নেটিজেনরা।

আগামীর প্রজন্ম নামে একটি ফেসবুক গ্রুপে ফয়েজ শুভ নামে একজন লিখেন, “কেমন মানসিক বিকলাঙ্গ হলে এমন উদ্ভট কাজ সম্ভব আপনারাই বলুন! সুন্দর জিনিস দেখতে কার না ভালো লাগে, দুর্ভাগ্য আমাদের।”

জুবায়ের ডিউক নামের একজন ওই পোস্টের কমেন্টে লিখেন, “আমার মনে হয় এই পাথর নিক্ষেপকারীরা বাস মালিক সমিতির কেউ হবে, যারা উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে এ কাজটা করছে রেলপথকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য এবং এর উন্নয়নকে থমকে দিয়ে জনগণকে বাসমুখী করার জন্য।”

প্রিন্সিপাল ওবায়দুর রহমান নামে আরেকজন কমেন্ট করেন, “এদের ধরে শাস্তি না দিলে এ অপরাধ প্রবণতা বন্ধ হবে না। রেলপুলিশ কী করেছে? ওরা ব্যস্ত থাকে যাত্রীদের ব্যাগ চেকিংয়ে।”

সাগর দাস নামে একজন তার ফেসবুক আইডিতে লিখেছেন, “বাঙালিরা যে কত বড় চুতিয়া তার প্রমাণ নতুন এই ট্রেনটি। কুকুরের পেটে সত্যিই ঘি ভাত সহ্য হয় না…।”

ভয়েস অব রাজশাহী নামের একটি ফেসবুক পেজে লেখা হয়েছে, ‘দুদিনেই ঢিলের আঘাতে চুরমার বনলতা এক্সপ্রেস! অদ্ভুত কিছু মানুষ বাস করে এদেশে। দেশের সম্পদের ক্ষতি করে তারা পাশবিক আনন্দ পায়।”

মন্তব্য