| প্রচ্ছদ

পাকিস্তানের বিপক্ষে নেই মাশরাফী-সাকিব!

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৭৪ বার। প্রকাশ: ২৬ মে ২০১৯ ।

কিছুক্ষণ পরেই পাকিস্তানের বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে মাঠে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। কার্ডিফে অনুষ্ঠেয় ম্যাচটিতে পুরো শক্তির টাইগারদের নাও দেখা যেতে পারে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে। চোটের শঙ্কা থেকে একাদশের বাইরে থাকতে পারেন খোদ অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। খেলার সম্ভাবনা নেই অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানেরও।

কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেন্সে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে তিনটায় শুরু হবে ম্যাচটি। এই লড়াইয়ে তারুণ্যনির্ভর বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট তারুণ্যনির্ভর একাদশ সাজাতে পারে বলে জানা গেছে। বিশ্বকাপের মূল লড়াইয়ের আগে চোটপ্রবণ অভিজ্ঞদের নিয়ে ঝুঁকি নিতে চাইছেন না তারা। সিনিয়রদের মধ্যে শুধু মুশফিকুর রহিমই খেলতে পারেন। ম্যাচ খেলার সুযোগ কখনোই হাতছাড়া করতে রাজি নন এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান।

একই ভেন্যুতে আগামী মঙ্গলবার দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ওই ম্যাচেও মাঠের বাইরে থাকতে পারেন মাশরাফী ও সাকিব। তবে ভারতের বিপক্ষে দেখা যেতে পারে তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে নেতৃত্বেও চমক দেখা যেতে পারে। সরফরাজ আহমেদের সঙ্গে টসে যেতে দেখা যেতে পারে বাংলাদেশ দলের ভবিষ্যতের অন্যতম ভরসা মেহেদী হাসান মিরাজকে।

সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে উজ্জীবিত বাংলাদেশ শিবির। ইংল্যান্ডে যাওয়ার আগে আয়ারল্যান্ডের ত্রিদেশীয় সিরিজে শিরোপা জিতেছে তারা। বহুজাতিক কোনো টুর্নামেন্টে এটাই দলটির প্রথম শিরোপা। তাও অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন! শুধু মূল একাদশ নয়, রিজার্ভ বেঞ্চের খেলোয়াড়রাও আছেন দারুণ ফর্মে।

অন্যদিকে, সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে বাংলাদেশের তুলনায় অনেক পিছিয়ে পাকিস্তান। গেল ১১ ম্যাচের সবকটিতেই হেরেছে তারা। গত শুক্রবার প্রস্তুতি ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষেও হেরেছে তারা। বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়েও দুই দলের মধ্যে তেমন কোনো পার্থক্য নেই বাংলাদেশ (সপ্তম) ও পাকিস্তানের (ষষ্ঠ)।

২০১৫ সাল থেকে পাকিস্তানকে টানা হারিয়েই যাচ্ছে বাংলাদেশ। ২০১৫ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত পাকিস্তানের বিপক্ষে একটি ওয়ানডে ম্যাচেও হারেনি টাইগাররা। শুধুই জয় সঙ্গী হয়েছে। চার ম্যাচে লড়াই করে চারটিতেই জিতেছে তারা। আজকের লড়াইয়ে এর ব্যতিক্রম হবে না বলে সবার বিশ্বাস।

মন্তব্য