| প্রচ্ছদ

বিশ্বকাপ মাতানো এই লাস্যময়ীদের চেনেন?

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৪ বার। প্রকাশ: ০২ জুন ২০১৯ ।

ভদ্রলোকের খেলা এখন মিলিয়র বিলিয়ন ডলারের ব্যবসা। ঝা চকচকে গাড়ি, ব্যয়বহুল ক্যামেরা, স্পন্সর, গ্ল্যামার সব মিলিয়ে ক্রিকেট এখন সবচেয়ে দামি খেলাগুলোর একটি। চিয়ারলিডার, ধারাভাষ্যকার, সাংবাদিক, উপস্থাপকসহ ক্রিকেটে এখন গ্ল্যামারের ছড়াছড়ি। টিভির পর্দায় লাস্যময়ী সুন্দরী না দেখলে ক্রিকেট এখন অপূর্ণ থেকে যায়। ইংল্যান্ডে অনষ্ঠিত এবারের বিশ্বকাপে মাঠের বাইরে থেকে আসর কাঁপাচ্ছেন বিভিন্ন দেশের কয়েকজন নারী। আসুন জেনে নেই তাদের পরিচয়-

পিয়া জান্নাতুল: মডেল-অভিনেত্রী হিসেবে বেশ অনেক আগে থেকেই পরিচয় ছিল পিয়া জান্নাতুলের। তবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে উপস্থাপনা করে আলোচনায় উঠে আসেন তিনি। বড় পর্দা, ছোট পর্দা এবং র‍্যাম্প- এই তিন প্ল্যাটফর্মেই অবাধ বিচরণ তার। ২০০৭ সালে মিস বাংলাদেশ নির্বাচিত হন। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। ২০১৩ সালে 'মিস ইন্ডিয়ান প্রিন্সেস ইন্টারন্যাশনাল' নির্বাচিত হন। ২০১২ সালে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে তার। 'চোরাবালি', 'দ্যা স্টোরি অব সামারা', 'গ্যাংস্টার রির্টান'সহ বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। জিটিভির হয়ে এবারের বিশ্বকাপ মাতাচ্ছেন এই বঙ্গ কন্যা। 

 

রিধিমা পাঠক: মার্কেটিং অ্যানালিস্ট হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করা রিধিমা সৌন্দর্য্য ও আবেদনময়ী কণ্ঠের কারণে ক্রীড়াক্ষেত্রে সাফল্য পান। বাস্কেটবল দিয়ে ধারাভাষ্য শুরু করা রিধিমা নজরে আসেন সনি টিভির। সেখান থেকেই স্টার স্পোর্টসের সাথে যাত্রা শুরু হয় এই লাস্যময়ীর। একটা সময় প্রকৌশলী হতে চাওয়া এই সুন্দরী এখন ক্রিকেট আইকন। অসাধারণ কণ্ঠ আর উপস্থাপনায় বুদ্ধিমত্তার কারণে ক্যারিয়ারে তরতর করে এগিয়ে চলছেন রিধিমা। কিছুদিন আগে নিয়েছেন বিরাট কোহলির সাক্ষাতকার। বিশ্বকাপের প্রথম থেকেই দারুণ আলোচনায় রয়েছেন রিধিমা।

জয়নব আব্বাস: এবারের আসরে পাকিস্তান দলের চেয়ে বেশি আলোচনায় পাকিস্তানি নারী সাংবাদিক জয়নব আব্বাস। ক্রিকেটারদের সাথে সেলফি ও তাদের সাক্ষাতকার নেওয়ায় জয়নবের জুড়ি নেই। লাহোরে জন্ম নেওয়া এই নারী এমবিএ শেষ করার পর মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজি নিয়ে কাজ শুরু করেন। দুনিয়া টিভির হয়ে পাকিস্তান সুপার লিগে উপস্থাপনার কাজ পান। জয়নব পরিচিতি পান টেন স্পোর্টসের হয়ে কাজ শুরুর পর। বিশ্বের নামিদামি সব ক্রিকেটারের সাক্ষাতকার নিয়েছেন তিনি। যার মধ্যে বিরাট কোহলিও রয়েছেন।

ইলমা স্মিট: রেডিও জকি হিসেবে কাজ শুরু করা ইলমা ২০১০ সালে আফ্রিকানস মিউজিক চ্যানেলের হয়ে কাজ শুরু করেন। পরের বছর এমকে এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানও পরিচালনা করেন। সে বছর নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত রাগবি বিশ্বকাপে স্পটলাইটের আলো নিজের দিকে নিয়ে আসেন তিনি। একের পর তারকা খেলোয়ারদের সাক্ষাতকার নেন এই নারী। এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপেও রয়েছেন ইলমা। দক্ষিণ আফ্রিকার একটি টেলিভিশনের হয়ে কাজ করছেন তিনি।

মায়ান্তি ল্যাঙ্গার:

চেয়েছিলেন গ্রাফিক ডিজাইনার হতে। তবে জি স্পোর্টসের হয়ে ‘ফুটবল ক্যাফে’ নামক অনুষ্ঠানটি জীবনের মোড় ঘুড়িয়ে দেয় মায়ান্তি ল্যাঙ্গারের। ২০১০ সালে ফুটবল বিশ্বকাপ নিয়ে ইএসপিএন এ একটি অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করতে তিনি। ফুটবল নিয়ে তাঁর জ্ঞান ও সুক্ষ বিশ্লেষণ সবার নজর কাড়ে। একের পর এক অনুষ্ঠান সঞ্চালনার ডাক পেতে থাকেন এরপর। ২০১০ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত কমনওয়েলথ গেমসে সঞ্চালনা করে বিশ্ব জোড়া পরিচিতি পান। ২০১১ থেকে পথা চলা শুরু স্টার নেটওয়ার্কের সাথে।

 

২০১১ ও ২০১৫ সালে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে মাঠে থেকে ভারাভাষ্য ও উপস্থাপনা করেছেন মায়ান্তি। এছাড়া আইপিলে প্রতি বছরই মায়ান্তির উপস্থাপনা সবার নজর কাড়ে। স্টার স্পোর্টসে একাধিক অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করছেন তিনি। এবারের বিশ্বকাপেও স্টার স্পোর্টসের হয়ে এর আসর মাতাবেন তিনি। 

হ্যাঁ, মায়ান্তির আরো একটি পরিচয় আছে। ভারতীয় ক্রিকেটার স্টুয়ার্ট বিন্নির সহধর্মীনি তিনি। 

মন্তব্য