| প্রচ্ছদ

ফেভারিট ইংল্যান্ডের সামনে আজ শ্রীলংকা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৫৬ বার

বিশ্বকাপে মোটেও ভালো খেলতে পারছে না শ্রীলংকা। শেষ ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার কাছে বাজেভাবে হারের পর হতাশায় সংবাদমাধ্যমের সামনে  পর্যন্ত আসেনি তারা। অবাক বিষয় হলো, এরপরও পয়েন্ট টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে লংকানরা। সেমিতে খেলার সম্ভাবনাও নাকি আছে দ্বীপদেশটির। সে সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে হলে সামনে কয়েকটি বড় পরীক্ষা দিতে হবে তাদের, যার প্রথমটি আজ স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। সেমির সম্ভাবনা টিকিয়ে রাখতে হলে জিততেই হবে লংকানদের। আর দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ইংলিশদের মনোযোগ ম্যাচটি জিতে পয়েন্ট টেবিলে নিজেদের অবস্থান পোক্ত করার দিকে।

হেডিংলিতে আজকের লড়াইটিকে অনেকটা ডেভিড বনাম গোয়ালিয়থের সঙ্গে তুলনা করা যায়। একদিকে হটফেভারিট ইংল্যান্ড, যারা কি-না র‌্যাংকিংয়ে এক নম্বরে। এরই মধ্যে শিরোপার অন্যতম দাবিদার হিসেবেও নিজেদের প্রতিষ্ঠা করে ফেলেছে দলটি। অন্যদিকে শ্রীলংকার অবস্থা তথৈবচ। পাঁচ ম্যাচ খেলে একটি মাত্র জয় পেয়েছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে। দুটি ম্যাচে অসহায় আত্মসমপর্ণ করেছে। তাদের দুটি ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেছে। সেখানে একটি করে দুই পয়েন্ট পেয়ে গেছে তারা। যে কারণে পয়েন্ট টেবিলের মাঝামাঝি অবস্থানে উঠে এসেছে তারা। অথচ পাকিস্তান ও বাংলাদেশের বিপক্ষে তাদের হারের সম্ভাবনাই বেশি ছিল। অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি স্টিভ ওয়াহর ধারণা, বৃষ্টিতে পাওয়া ওই দুই পয়েন্টের কারণে নাকি সেমিতে খেলতে পারে শ্রীলংকা। তবে তাদের সামনের পথটা ভীষণ কঠিন।

লংকানদের জন্য একটা সুসংবাদ হলো আজ তাদের বিপক্ষে বিধ্বংসী ওপেনার জেসন রয়কে পাচ্ছে না স্বাগতিকরা। তাই বলে স্বস্তিতে থাকার জোও নেই। ইংল্যান্ডের ব্যাটিংয়ের গভীরতা অনেক। সেখানে জেসন রয়ের মতো ওপেনার না থাকলেও টের পাওয়া যায় না। গত ম্যাচেও ছিলেন না এই ওপেনার। তারপরও ৩৯৭ রানের পাহাড় গড়ে তুলেছিলেন তারা। অধিনায়ক ইয়ন মরগান আবির্ভূত হয়েছিলেন বিধ্বংসীরূপে। আছেন জো রুট, জস বাটলার, জনি বেয়ারস্টো, বেন স্টোকসের মতো ব্যাটসম্যান। তাই কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে শ্রীলংকান বোলারদের। চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে লংকান ব্যাটসম্যানদেরও। জোফরা আর্চার ও মার্ক উডের গতি সামলাতে প্রায় প্রতিটি দলকেই হিমশিম খেতে হচ্ছে। ক্রিস ওকস, বেন স্টোকসরাও দারুণ বোলিং করছেন। আছে মইন আলি ও আদিল রশিদের স্পিনবৈচিত্র্যও।

শ্রীলংকার আগের ম্যাচগুলোতে বৃষ্টির দাপট দেখা গেলেও আজ হেডিংলিতে সে সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। সকালের দিকে আকাশে সামান্য মেঘের আনাগোনার সম্ভাবনা থাকলেও দিনের অধিকাংশ সময় রোদ্রোজ্জ্বল থাকবে বলেই জানিয়েছে ইংল্যান্ডের আবহাওয়া বিভাগ। মাঠে বেশ বাতাস থাকারও সম্ভাবনা রয়েছে। তাই ১৪৫ কিমি বেশি গতিতে বোলিং করতে পারলে সুবিধা পাওয়া যাবে। এ মাঠে এটা বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ। ফ্রেশ উইকেটে ব্যাটসম্যানদের রাজত্ব করার সম্ভাবনাই বেশি। 

মন্তব্য