| প্রচ্ছদ

'বগুড়া-৬ আসনে ১৪১টি ভোট কেন্দ্রের ১৩০টিই ঝুকিপূর্ণ'

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৮৯ বার

বগুড়া-৬ (সদর) আসনের উপনির্বাচনে ইভিএম বিষয়ে ভোটারদের ধারনা দিতে শনিবার প্রতিটি কেন্দ্রে রিহার্সেল ভোট অনুষ্ঠিত হবে। রিহার্সেল ভোটে অংশ নিতে নির্বাচন অফিস থেকে প্রতিটি এলাকায় ব্যাপকহারে মাইকিং ও প্রচার প্রচারনা চালানো হচ্ছে। এমনকি বাদ্যযন্ত্র দিয়ে ব্যান্ড পার্টিও নামানো হয়েছে। এর আগে ইভিএম ভোটের বিষয়ে ভোটারদের তেমন সাড়া না পেয়ে পুনরায় এই আয়োজন করা হয়েছে।

এদিকে এই আসনে ১৪১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১৩০টিকেই অধিক গুরুত্বপূর্ণ (ঝুকিপূর্ণ) হিসেবে চিহিৃত করা হয়েছে।

শুক্রবার জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং অফিসার মাহবুব আলম শাহ্ সাংবাদিকের বিফ্রিংকালে রিহার্সেল ভোটের কথা জানান। তিনি বলেন, ইভিএম সর্ম্পকে ধারণা দিতে ১৭ ও ১৮ জুন প্রতিটি কেন্দ্রে ভোটারদের আহবান করা হয়েছিল। শনিবার ইভিএমের চূড়ান্ত রিহার্সেল দেওয়া হবে। এ জন্য সকল ভোটারদের স্ব স্ব কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে বলা হচ্ছে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত রিহার্সেল ভোট হবে।

শহরের খান্দার এলাকায় জেলা নির্বাচন অফিসের হল রুমে আয়োজিত ব্রিফিংকালে আরও জানানো হয়, ভোটের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে ৩ জন করে ইভিএম টেকনিশিয়ান থাকবেন। এর মধ্যে ২জন সেনাবাহিনীর অপরজন নির্বাচন কমিশনের। এছাড়াও ২৬টি ভ্রাম্যমাণ বিশেষ ইভিএম বিশেষঞ্জ টিম থাকবে। প্রতিটি কেন্দ্রের প্রতিটি বুথে একটি করে ইভিএম দিয়ে ভোট নেওয়া হবে। এছাড়া অতিরিক্ত আরও একটি করে ইভিএম রাখা হবে। অথাৎ ১৪১টি কেন্দ্রের যে ৯৬৫টি বুথ করা হচ্ছে, তার প্রতিটি বুথে ২টি করে ইভিএম থাকছে। কোন কারণে একটি অকেজো হলে অপরটি দিয়ে ভোট গ্রহণ অব্যাহত থাকবে।

এদিকে এ আসনে ১৪১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ১৩০টিকেই অধিক গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহিৃত করেছে জেলা পুলিশের বিশেষ শাখা। ওই কেন্দ্রগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকছে বলেও সাংবাদিকের জানান রির্টানিং অফিসার।

ব্রিফিংকালে আরও উপস্থিত ছিলেন সহকারী রির্টানিং অফিসার এএসএম জাকির হোসেন, সেনাবাহিনীর ইভিএম বিশেষজ্ঞ মেজর মো: মাজহারুল ইসলাম, নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধি বিমান বাহিনীর স্কোয়াডন লিডার কাজী আরিফ ও শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকতা আনিছুর রহমান কবির।

উল্লেখ্য, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ না নেওয়ায় শুন্য হয়ে যাওয়া এই আসনে আগামী ২৪ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

মন্তব্য