| প্রচ্ছদ

ভারতীয় মিডিয়ায় সাকিবের বক্তব্যের চুলচেরা বিশ্লেষণ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৯৬ বার। প্রকাশ: ২৫ জুন ২০১৯ ।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে দলকে জয় এনে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান। বাংলাদেশের সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রেখেছেন। ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের জেতার সমার্থ্য আছে বলে আফগান ম্যাচ শেষে উল্লেখ করেন বাংলাদেশ অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ভারতীয় মিডিয়ার তার বক্তব্য ফলাও করে প্রচার করা হচ্ছে। তুলে ধরা হয়েছে নানা দিক। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে এখনই সতর্ক তারা।

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা সাকিবের বক্তব্য ধরে করা নিউজে উল্লেখ করেছে, "বাংলার বাঘ'দের পরের দুটো ম্যাচ ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে। এই দুটো ম্যাচ জিতে শেষ চারের পাসপোর্ট জোগা়ড় করতে চাইছেন সাকিবরা।" এছাড়া লিখেছে, নখ-দাঁত হারিয়ে ফেলা পাকিস্তান নয় বাংলাদেশ এখন ভারতের কঠিন প্রতিপক্ষ। সাম্প্রতিককালে, ক্রিকেট মাঠে ভারতকে বেশি বেগ দিয়েছে বাংলাদেশই। খবর সমকাল অনলাইন।

ভারতের বাংলা সংবাদমাধ্যম আজকালের শিরোনাম, 'বিরাটদের সতর্ক করলেন সাকিব।' ভেতরে তারা উল্লেখ করেছে, আফগান ম্যাচ জেতার পর সাকিব কিন্তু ভারতকে সতর্ক করে দিয়েছেন। সমীহের সুর চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছেন। বলেছেন, '‌অভিজ্ঞতায় ভারত এগিয়ে। কিন্তু অভিজ্ঞতা শেষ কথা নয়। তাদের হারানোর যোগ্যতা আমাদেরও আছে। ‌সবচেয়ে বড় ম্যাচটা খেলতে নামব ভারতের বিপক্ষে। তারই প্রস্তুতি শুরু হবে এবার।'

ইংরেজি সংবাদ মাধ্যমও পিছিয়ে নেই। টাইমস অব ইন্ডিয়া শিরোনামে বলেছে, সাকিবরা অঘটন উপহার দিতে চায় ভারতকে। ভেতরে সাকিবের বক্তব্য বিশ্লেষণ করে তারা লিখেছে, ২০০৭ বিশ্বকাপের কথা মনে আছে। ভারতকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ২ জুন বিরাট কোহলিদের বিপাকে ফেলবেন মাশরাফির দল। মাঝে সাকিবের ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বলা বক্তব্য তুলে ধরেছেন। আর শেষে উল্লেখ করেছেন, আইপিএলে থাকাকালীন সাকিব তার স্থানীয় কোচ সালাউদ্দিনের সঙ্গে আলাদা করে কাজ করেছেন। এছাড়া আইপিএলে সাকিব বেশি ম্যাচ না খেলায় সতেজ হয়ে বিশ্বকাপে গেছেন। ভালো করছেন।

ইন্ডিয়া টুডে সাকিবকে উদ্ধৃত করে শিরোনাম করেছে, "আফগান ম্যাচের পর সাকিব বলেন, বাংলাদেশ সেরা 'শটটা' ভারতের বিপক্ষে খেলবে।" সাকিবের পরোক্ষ উক্তিতে লিখেছে, সাকিবরা দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারতের চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত বলে জানিয়েছে। বিশ্লেষণে লিখেছে, বাংলাদেশ তাদের সেমিফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রেখেছে। তাদের দলে সাকিব-মুশফিকের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার আছেন। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ছয় দিনের ছুটি। সব মিলিয়ে ভারতকে ধাক্কা দেওয়ার সামর্থ্য বাংলাদেশের আছে বলে উল্লেখ করেছেন সাকিব।

হিন্দুস্তান টাইমসের শিরোনাম, 'আফগানিস্তানের বিপক্ষে রেকর্ড ভাঙা পারফর্ম করে ভারতকে সতর্ক করলেন সাকিব।' ভেতরের কথায় ভারতকে তারাও সতর্ক করে লিখেছে, বিশ্বকাপের বিখ্যাত অঘটনটা ভারতের বিপক্ষে ঘটাতে চাইবে বাংলাদেশ। ভারতকে তারা ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে বিদায় করে দিয়েছিল। এরপর সাকিবের রেকর্ডগুলো উল্লেখ করেছে তারা। লিখেছে, সাকিবের দুর্দান্ত এই পারফরম্যান্সের কারণেই তিনি বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

উল্লেখ্য ভারতের পরবর্তী ম্যাচ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগামী ২৭ জুন। এরপর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৩০ জুন মুখোমুখি হবে তারা। দুই ম্যাচের ধকল নিয়ে তারপর খেলতে হবে বাংলাদেশের বিপক্ষে। পয়েন্ট টেবিলে ভালো অবস্থানে থাকা ভারত এই দুই ম্যাচে জিতলে তাদের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যাবে। এরপরই ২ জুন বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলবে তারা। কিন্তু ভারতের মিডিয়া যেন উইন্ডিজ-ইংল্যান্ড অপেক্ষা বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে বেশি চিন্তিত। সাকিবের বক্তব্য ফলাও করে প্রকাশ তারই প্রমাণ নয় কি?

মন্তব্য