| প্রচ্ছদ

কেন আদায় করা ফি ফেরত দেওয়া হবে না জানতে চেয়ে শো’কজ

বগুড়ায় অতিরিক্ত সেশন ফি গ্রহণকারী  ৬টি স্কুলের বিষয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট  দিতে ডিসিকে হাইকোর্টের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ২৫০১ বার

শিক্ষা মন্ত্রণালয় নির্ধারিত সেশন ফি’র অতিরিক্ত অর্থ আদায়কারী বগুড়ার ৬টি স্কুল সম্পর্কে তদন্ত করে ২ মাসের মধ্যে রিপোর্ট দাখিল করতে স্থানীয় জেলা প্রশাসককে (ডিসি) নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। আদালত একই সঙ্গে আদায় করা অতিরিক্ত ফি কেন ফেরত দেওয়া হবে না তার কারণও ৪ সপ্তাহের মধ্যে দর্শাতে বলেছেন। বিচারপতি জেবিএম হাসান এবং মোঃ খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ গত ২ জুলাই এ সংক্রান্ত আদেশ দিয়েছেন। 
আদালতে বগুড়ার যে ৬টি স্কুলের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত সেশন ফি উত্তোলনের অভিযোগ করা হয়েছে সেগুলো হলো- এসওএস হারম্যান মেইনর স্কুল ও কলেজ, বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজ, বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ, ইয়াকুবিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, টিএমএসএস স্কুল ও কলেজ এবং বগুড়া সিটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়। তবে বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ জানিয়েছেন তিনি এ ধরনের আদেশের কথা শুনেছেন কিন্তু অফিসিয়ালি কোন কপি পাননি। তবে আদেশ পেলে সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।
ওই মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন জানান, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের পক্ষ থেকে ২০১৮ সালের ১৩ নভেম্বর একটি নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়। তাতে জেলা সদরে স্কুলগুলোতে সেশন চার্জসহ ভর্তি ফি ২ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে। কিন্তু চলতি বছরের শুরুতে বগুড়ার এসওএস হারম্যান মেইনর স্কুল ও কলেজ, বিয়াম মডেল স্কুল ও কলেজ, বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল ও কলেজ, ইয়াকুবিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, টিএমএসএস স্কুল ও কলেজ এবং বগুড়া সিটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই নীতিমালা অমান্য করে ২ থেকে ৭গুণ পর্যন্ত অতিরিক্ত ফি আদায় করে। এ বিষয়ে বগুড়ার জনৈক আব্দুল মান্নান আকন্দ বাদী হয়ে চলতি বছরের ৭ ফেব্রুয়ারি উচ্চ আদালতে রিট করেন। পরে শুনানী শেষে আদালত ওই আদেশ দেন।

মন্তব্য