| প্রচ্ছদ

শিল্পের পাঠশালা বাবুই এর উদ্যোগে

বগুড়ায় করতোয়া নদী রক্ষার দাবিতে কাগজের নৌকা ভাসিয়ে শিশুদের প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৪৬৩ বার

বগুড়ায় করতোয়া নদী রক্ষার দাবিতে শিশু কিশোরদের শিল্পের পাঠশালা ‘বাবুই’র উদ্যোগে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মধুমাসের ফল উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বিকাল ৫ টার দিকে কালেক্টর স্কুলের পাশে করতোয়া নদীর পাড়ে ওই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এসময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ।

সমাবেশ শেষে শিশুরা নদীতে নানা রঙয়ের কাগজের নৌকা ভাসিয়ে করতোয়াকে দখল এবং দূষণমুক্ত করার দাবি জানায়।

বগুড়ায় শুদ্ধ সাংস্কৃতিক চর্চা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শিশু-কিশোরদের মনন-কাঠামো গড়ে তোলার প্রত্যয়ে ০৭ এপ্রিল ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় শিশু-কিশোরদের শিল্পের পাঠশালা “বাবুই” নামের সাংস্কৃতিক শিক্ষালয়। আজকের শিশুই যেহেতু আগামীকালের রাষ্ট্র-রাজনীতি ও সংস্কৃতিকে এগিয়ে নেবে তাই শিশুর মনোজগতে শেকড়ের গন্ধ মাখাতে “বাবুই” তার আদর্শিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

অলক পালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, ‘নদীর ধারে যেসব শিশু বেড়ে উঠে তাদের শৈশব হয় মধুময়। করতোয়া নদীকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে বগুড়া শহর। আগে নদীকেই যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হতো। কিন্তু এখন সেই নদী ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। আমরা আমাদের সমস্ত ময়লা-আবর্জনা এখন নদীতে ফেলি। নদী যদি দূষণমুক্ত না হয় তাহলে আমাদের শিশুদের শৈশব নদীর ছোঁয়া থেকে অনেক দূরে থাকবে। তাই নদীকে পরিষ্কার ও দূষণমুক্ত করা হলেই একটি সুন্দর ও নির্মল পরিবেশ পাওয়া যাবে।'

করতোয়া নদী সংস্কারের ব্যাপারে তিনি বলেন, 'বর্তমান সরকার করতোয়াসহ অন্যান্য নদীও সংস্কারের প্রজেক্ট হাতে নিয়েছেন। তাই বাংলাদেশের নদীগুলো বাঁচিয়ে রাখতে হলে আমাদের সবার এক হয়ে কাজ করে যেতে হবে।'

এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাবুই’র পরিচালক রাকিব জুয়েল, নাট্যকর্মী খলিলুর রহমান, শরিফ মজুমদার, এবং জিয়াউল হক বাবলা।

এসময় বক্তারা করতোয়া নদী সংস্কার ও দখল্মুক্ত করার পাশাপাশি জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের পাশের অংশ শিশুদের বিনোদন কেন্দ্র গড়ে তোলার আহবান জানান। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সমাবেশের সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। 

মন্তব্য