| প্রচ্ছদ

বগুড়ার শেরপুরে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার- স্বামী ও শ্বশুড় আটক

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৫৬ বার

বগুড়ার শেরপুরে বিপাশা রানী সরকার (২০) নামে এক গৃহধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের উঁদগ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। নিহত বিপাশা রানী জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার মাড়িয়া গ্রামের বিপ্লব চন্দ্র সরকারের মেয়ে। রোববার ওই গৃহবধূর লাশ ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এই ঘটনায় ওই গৃহবধূর বাবা আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে স্বামী প্রশান্ত চন্দ্র সরকার, শ্বশুড় সুনীল চন্দ্র সরকার ও শাশুড়ী সারর্থী রানীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন। পরে গৃহবধূর স্বামী ও শ্বশুড়কে আটক করে পুলিশ ।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, বছর তিনেক আগে উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের উঁদগ্রামের প্রশান্ত চন্দ্র সরকারের সঙ্গে বিপাশা রানীর বিয়ে হয়। বিয়েতে নগদ তিন লাখ টাকা ও একটি বাজাজ মোটরসাইকেল যৌতুক দেয়া হয়। সংসার জীবনে তাদের পরিবারে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই বউ হিসেবে বিপাশাকে পছন্দ নয়-এমন অভিযোগ তুলেন স্বামীর ও তার পরিবারের সদস্যরা। তাই কোন কারণ ছাড়াই ওই গৃবধূর ওপর শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালানো হতো। একপর্যায়ে তাদের অমানবিক নির্যাতন সইতে না পেরে শনিবার ঘটনার সময়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগে দাবি করা হয়েছে।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে স্বামী প্রশান্ত সরকার বলেন, 'বিপাশার সঙ্গে কোন কথাই হয়নি। এরপরও কেন সে আত্মহত্যা করলো তা বুঝতে পারছি না।'

শেরপুর থানার এসআই পুতুল মোহন্ত জানান, ওই ঘটনায় প্রাথমিকভাবে অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। ময়না তদন্তের প্রতিবেদন অনুযায়ী পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে গৃহবধূর স্বামী-শ্বশুড়কে আটক করা হয়েছে। 

মন্তব্য