| প্রচ্ছদ

সন্তানের জন্য টানা ৪৪ বছর রোজা রাখা সেই মা আর নেই

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬২ বার

মা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ অবদান। মায়ের অকৃত্রিম ভালোবাসা ও স্নেহের সঙ্গে তুলনা হয় না কোন কিছুরই। পৃথিবীতে সন্তানের জন্য সর্বোচ্চ ত্যাগ স্বীকার একমাত্র মা-ই করতে পারেন।

সেই ভালোবাসার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গোপালপুর গ্রামের ভেজিরন নেছা।

হারিয়ে যাওয়া সন্তানকে ফিরে পেয়ে মহান সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টির জন্য ৪৪ বছর ধরে টানা বারো মাস রোজা পালন করে গেছেন তিনি। কিন্তু সেই ভেজিরন নেছা আর নেই।

সোমবার বার্ধক্যজনিত কারণে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার বাজার গোপালপুর নিজ বাড়িতে আনুমানিক বিকেল পাঁচটার দিকে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

জানা গেছে, ১৯৭৫ সালে তার বড় ছেলে শহিদুল ইসলাম ১১ বছর বয়সে হারিয়ে যান। বিভিন্ন যায়গায় সন্তানকে খুঁজে না পেয়ে পাগলপ্রায় হয়ে যান এই মা। পরে সন্তানকে ফিরে পেতে আরজি করেন মহান আল্লাহর দরবারে।

মসজিদ ছুঁয়ে প্রতিজ্ঞা করেন, সন্তান ফিরে এলে সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টির জন্য রোজা পালন করবেন সারাবছর। হারিয়ে যাবার দেড়মাস পর সন্তান বাড়িতে ফিরে এসে 'মা' বলে ডাক দেন। শান্তির পরশ পান ভেজিরন নেছা। এরপর থেকেই প্রতিজ্ঞা রক্ষার্থে দীর্ঘ ৪৪ বছর ধরে, বারোমাস রোজা পালন করছেন এই মমতাময়ী মা।

এলাকাবাসী জানান, অভাব অনটনের পাশাপাশি বয়সের ভারে নুয়ে পড়লেও ভেজিরন নেছা সন্তানের কল্যাণে প্রতিজ্ঞা ভঙ্গ করেননি।

ভেজিরন নেছার ৩ ছেলে ও ৩ মেয়ে। এদের মধ্যে এক মেয়ে মারা গেছেন।

মন্তব্য