| প্রচ্ছদ

আমার পরিবারে ধর্মকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না: হৃতিক

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৮৮ বার

সাংবাদিক রোহেল আমিনের সঙ্গে প্রেম সুনয়না রোশনের। কিন্তু ধর্মের পার্থক্যের কারণে বিষয়টি মেনে নেয়নি রোশন পরিবার। কিছুদিন আগে এই অভিযোগ সামনে আসে।

হৃতিক রোশনের বোন সুনয়না জানান, মুসলিম ছেলেকে ভালোবাসার অপরাধে বাবা রাকেশ রোশনের হাতে মারও খেতে হয়েছে তাকে।

প্রাথমিক ভাবে কোনো প্রতিক্রিয়া না দিলেও অবশেষে বোনের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন হৃতিক।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘‘বিষয়টি আমার এবং পরিবারের জন্য ব্যক্তিগত ও সংবেদনশীল। সুনয়নার এখন যা অবস্থা, তাতে ওকে নিয়ে আমার কথা বলাটা ঠিক নয়। এই ধরনের দুর্ভাগ্যজনক পরিস্থিতি হয়তো অনেক পরিবারকে সামলাতে হয়।”

সঙ্গে যোগ করেন, “এটুকু বলতে পারি, ধর্ম আমার পরিবারে কোনো বড় বিষয় নয়। এটা নিয়ে কোনো আলোচনা হয় না। আসলে ধর্মকে সেভাবে গুরুত্বই দেওয়া হয় না। আমার এটা বিশ্বাস করতে ইচ্ছা করে, গোটা পৃথিবীতেই হয়তো এভাবে ভাবা হয়।’’

সুনয়না অভিযোগে বলেছিলেন, ‘‘এক মুসলিম ছেলেকে ভালোবেসেছি বলে বাবা আমাকে চড় মেরেছিল। ওর নাম রোহেল। বাবা বলেছিল, রোহেল জঙ্গি। আমি বাবা-মায়ের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আলাদা থাকতে শুরু করি। শুধুমাত্র মুসলিম বলে বাবা-মা ওকে মেনে নিচ্ছে না। ওরা আমার জীবনটা নরক করে তুলেছে।’’

ওই পরিস্থিতিতে ভাই হৃতিককেও পাশে পাননি বলে অভিযোগ করেন সুনয়না।  তিনি বলেন, ‘‘হৃতিকের কোনো কথা বাড়িতে চলে না। আমার রিলেশনশিপ নিয়ে কেউই খুশি নয়। হৃতিক বলেছিল, আমাকে একটা আলাদা বাড়িতে থাকার খরচ দেবে। কিন্তু লোখান্ডওয়ালায় আমার বাড়ি ভাড়া আড়াই লাখ টাকাও দিতে চায়নি। বলেছে, টাকাটা অনেক বেশি। ওর কাছে আড়াই লাখ টাকা বেশি! সবাই হেনস্তা করেছে আমাকে।”

সুনয়নার প্রেমিক রোহেলও প্রশ্ন তোলেন, তার ক্ষেত্রে সমস্যা হলে, কেন হৃতিকের সঙ্গে সুজান খানের বিয়ে মেনে নেয় রাকেশ পরিবার।

সাম্প্রতিক ভারতে সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে বিভিন্ন সমস্যা দেখা যাচ্ছে। ওই আবহে বলিউডের নামজাদা পরিবারের মানসিকতা নিয়ে চর্চা শুরু হয়।

মন্তব্য