| প্রচ্ছদ

বগুড়ার নন্দীগ্রামে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৩৮ বার

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধি কিশোরীকে মোয়াজ্জেম (৩০) নামের এক যুবক ধর্ষণ করেছে। শনিবার রাতে উপজেলার দিঘীরপাড়ে ঘরের তালা ভেঙে ওই ধর্ষিতাকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা। পরে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য কিশোরীকে উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অভিযুক্ত ধর্ষক উপজেলার বাশো দিঘীরপাড় গ্রামের আজিম উদ্দিনের ছেলে। সে দুই সন্তানের বাবা। তবে এ ঘটনার পর থেকে ধর্ষক মোয়াজ্জেম পলাতক রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মোয়াজ্জেম বিবাহিত হলেও স্ত্রীর সাথে সম্পর্ক ভাল চলছিল না। তাই স্ত্রী দুই সন্তানসহ বাপের বাড়িতে থাকতো। সেই সুযোগে মোয়াজ্জেম পাশের ছোট চাঙ্গুইর গ্রামের এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীর (১৫) সঙ্গে মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। শুক্রবার রাতে স্ত্রী-সন্তান না থাকার সুযোগে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ওই কিশোরীকে ফোনে বাড়িতে ডেকে নেয় । পরে তাকে ধর্ষণ করে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে।

পরেরদিন শনিবার সকাল থেকে কিশোরীর পরিবারের লোকজন খুঁজতে থাকে। মোয়াজ্জেমের ঘরে সন্ধ্যার পর মেয়েটির চিৎকারে গ্রামের লোকজন বিষয়টি জানতে। পরে ঘরের তালা ভেঙে তাকে কিশোরীকে উদ্ধার করে। কিন্তু ধর্ষক মোয়াজ্জেম সবার উপস্থিতি টের পেয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

ধর্ষিতার বাবা জানান, রোববার সকালে মেয়েকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সেখানে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবির বলেন, আমরা বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে জানতে পেরেছি। এখনো কিশোরীর পরিবারের কেও অভিযোগ না করলেও আমরা মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছি। 

মন্তব্য