| প্রচ্ছদ

জিপিএ-৫ না পাওয়ায় বগুড়ার এক শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ২৮৮ বার। প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০১৯ ।

এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ না পাওয়ায় ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছে তামিমা ইসলাম ওরফে ফেনি নামের এক শিক্ষার্থী। বুধবার দুপুর পৌণে ২টার দিকে বগুড়া শহরের ঠনঠনিয়া তেতুলতলা এলাকায় মোহসিন আলীর ডা: ভিলার ভাড়া বাসায় ওই ঘটনাটি ঘটে। ফেনী নওগা জেলার রানীনগরের ক্ষুদ্রবেলধারী গ্রামের ফরিদুল ইসলামের মেয়ে। বগুড়া সদর থানার ওসি এসএম বদিউজ্জামান আত্মহত্যার ঘটনাটী নিশ্চিত করেছেন। 


জানা গেছে, গত ২মাস আগে মেয়েকে মেডিকেলে ভর্তি করানোর জন্য কোচিং করাতে এই বাসা ভাড়া নেয়া হয়। মোছা: ফেনি রংপুর ক্যান্টনমেন্ট স্কুল থেকে এবার এইচএসসি পরীক্ষা দেয়। এইচএসসি পরীক্ষার রেজাল্ট প্রকাশ হবার পর ৪.৭ পায়  ফেনি । তার ধারণা ছিল সে এ প্লাস পাবে। তার চেয়ে কম মেধাবী অনেকে ছাত্রীই এ প্লাস পেয়েছে বলে ফেনির মন খুবই খারাপ ছিল। বারবার সে একই কথা বলছিল। এবং বিষয়টি তিনি মেনে নিতে পারছিলনা। সে তার মায়ের সাথে বাসায় কান্নাকাটি করেন ও বারবার বলেন এজীবন আমি আর রাখবো না। কান্নাকাটির এপর্যায়ে সে তার রুমে প্রবেশ করে এবং দরজা ভেতর থেকে বন্ধ করে দেয়। তারপর সাথে সাথে ফ্যানের সঙ্গে ফাঁস নেয় ফেনি। ঘটনাটির সঙ্গে সঙ্গে মেয়েটির মা চিৎকার দিলে বাসা ওয়ালা এবং বাড়ির আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে এসে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ফেলে।
 
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আমরা ঘটনাটি জানার সাথে সাথে বাড়িতে যাই এবং দরজা ভাঙ্গি এরপর দেখি মেয়েটি ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে। এরপর বগুড়া সদর থানায় ফোন দিয়ে ওসিকে অবগত করে তার অনুমতিতে মেয়েটিকে ফ্যান থেকে নেমে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মন্তব্য