| প্রচ্ছদ

ধর্ষককে বিদেশ থেকে ধরে আনলেন নারী পুলিশ অফিসার

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৬ বার। প্রকাশ: ১৮ জুলাই ২০১৯ ।

চাচার বন্ধু লাগাতার ধর্ষণের কারণে আত্মহত্যা করে বসে এক কিশোরী। ওই ঘটনায় চাচাও আত্মহত্যার করেন। সম্প্রতি দুই বছরের চেষ্টার পর ধর্ষককে সৌদি আরব থেকে ধরে আনলেন এক নারী পুলিশ অফিসার।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ঘটনাটি কেরালার কোল্লাম এলাকার। ২০১৭ সালে ওই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এর প্রায় দু-বছর পর ধরা পড়ল অভিযুক্ত।

পুলিশ জানায়, বন্ধুত্বের খাতিরে ওই পরিবারে অবাধ যাতায়াত ছিল ধর্ষকের। সেই বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে বন্ধুর কিশোরী ভাইঝিকে লাগাতার ধর্ষণ করে। ভয়ে ১৩ বছরের মেয়েটি মুখ খোলেননি। এই সুযোগে টানা তিন মাস ধর্ষণের শিকার হয় সে।

ঘটনা জানাজানি হলে আত্মহত্যা করে ওই কিশোরী। অনুশোচনায় আত্মহত্যা করেন চাচাও।

অভিযোগ উঠলেও ধর্ষক ছিল ধরা-ছোঁয়ার বাইরে। তত দিনে দেশ ছাড়ে সে। কিন্তু পিছু ছাড়েনি পুলিশ। কোল্লামের পুলিশ কমিশনার মেরিন জোশেফের নেতৃত্বে একটি টিম সৌদি আরব থেকে মঙ্গলবার ধরে আনে নাবালিকার ধর্ষককে।  এখন তাকে বিচারের মুখোমুখি করার প্রস্তুতি চলছে।

আইপিএস মেরিন জোশেফ ভারতীয় মিডিয়ায় খুবই পরিচিত মুখ। তাকে ইন্টারনেট সেনসেশন হিসেবে গণ্য করা হয়।

মন্তব্য