| প্রচ্ছদ

এক মাসের বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি টাকা! বুড়ো-বুড়ির মাথায় হাত

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৭২ বার। প্রকাশ: ২১ জুলাই ২০১৯ ।

বৃদ্ধ স্ত্রীকে নিয়ে ছোট একটি ঘরে থাকেন শামীম মোহাম্মদ। প্রতি মাসে বিল আসে ৭০০ টাকার মতো। সেখানে গত জুনের বিল এসেছে ১২৮ কোটি টাকা! ঘটনাটি ভারতের উত্তর প্রদেশের। দিল্লি থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে, হাপুর জেলার চামরি গ্রামে শামীমের বসবাস। 

সংবাদ সংস্থা এএনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে শামীম জানিয়েছেন, তাদের বাড়িতে ২ কিলোওয়াটের বিদ্যুৎ সংযোগ রয়েছে। আলো-পাখা মিলিয়ে প্রতি মাসে ৭০০ টাকার মতো বিল আসে। কিন্তু সম্প্রতি বিল হাতে পেয়ে চোখ কপালে ওঠে তার। তাতে ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪৪ টাকা মেটাতে বলা হয়।

শামীমের দাবি, প্রথমে কিছুই বুঝে উঠতে পারেননি তিনি। সংবিৎ ফিরলে ছুটে যান বিদ্যুৎ দপ্তরে। হিসাবে কোথাও ভুল হয়েছে বলে জানান। কিন্তু তার কথা কানে তোলেননি কেউ। ওই টাকা মেটানোর সামর্থ্য ছিল না তার। তাই টাকা জমা দেওয়ার নির্ধারিত দিন পেরিয়ে গেলে বিদ্যুৎ সংযোগ কেটে দেওয়া হয়।

‘কেউ আমাদের কথা শুনছে না। এত টাকা কী করে দেব? শুধু আলো-পাখা ব্যবহার করি আমরা। তাতে এত বিল হয় কী করে? মনে হচ্ছে, গোটা হাপুরের বিলই পাঠিয়ে দিয়েছে। অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলাম। কিন্তু বিল না মেটালে বিদ্যুৎ সংযোগ চালু হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে,’ বলছিলেন হতাশ শামীম।

স্থানীয় বিদ্যুৎ বিভাগের ইঞ্জিনিয়ার রাম শরণ বলেন, ‘সম্ভবত প্রযুক্তিগত ভুল হয়েছে। এটা এমন কিছু বড় ব্যাপার নয়। বিলটি হাতে পেলে, সবকিছু খতিয়ে দেখব আমরা। ভুল হয়ে থাকলে, তা সংশোধন করে নতুন বিল দেওয়া হবে ওই পরিবারকে।’

মন্তব্য