| প্রচ্ছদ

বগুড়ায় পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ১৫৪ বার

পরকীয়ায় বাঁধা দেওয়ায় বগুড়ার নন্দীগ্রামের পৌর কৃষকলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানার বিরুদ্ধে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার রাতে স্ত্রী ময়ুরী বেগমকে (২৬) হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালানোর চেষ্টা করা হয়। পরে অবস্থা বেগতিক দেখে ময়ুরী বেগমের স্বামী-শ্বশুরসহ সকলে বাড়ী থেকে পালিয়েছে। 

নন্দীগ্রাম পৌর শহরের কলেজপাড়ায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে। রোববার বেলা ১১টার দিকে কলেজপাড়ার স্বামীর বাড়ি থেকে ময়ুরীর মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। মাসুদ রানার বাবা ওসমান ফকির উপজেলা কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। 


স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকালে মাসুদ রানার বাড়ির পাশে বড়ইগাছের সাথে গৃহবধু ময়ূরী বেগমের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেওয়া হয়। এরপর বড়ইগাছে ঝুলন্ত অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।

ময়ূরী বেগমের মা নূরজাহান বেগম বলেন, 'আমার মেয়ে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় মাসুদ রানা মারপিট করে নির্মমভাবে হত্যা করে লাশটি গাছে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে অপপ্রচারের চেষ্টা করে।' 
 

ময়ুরীর বাবা আনোয়ার হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘মাসুদ রানার পরকীয়া নিয়ে তার স্ত্রীর সঙ্গে দাম্পত্য কলহ চলছিল বেশ কিছুদিন ধরে। শনিবার রাতে তাদের মধ্যে ঝগড়া হলে মাসুদ ফোন করে আমাকে বলে, রাতেই তোর মেয়েকে মেরে ফেলব। রোববার সকালে খবর পেয়ে এসে দেখি মেয়ের মরদেহ।'

নন্দীগ্রাম থানার ওসি শওকত কবির জানান, এই ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মন্তব্য