| প্রচ্ছদ

এক ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ মেসি, ১৫০০ ডলার জরিমানা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪৮ বার

সদ্য সমাপ্ত কোপা আমেরিকায় তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচ শেষে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রণ সংস্থা কনমেবল-এর কঠোর সমালোচনা করেছিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক লিওনেল মেসি। সেই থেকেই সবার ধারণা ছিল যে, বড় নিষেধাজ্ঞায় পড়তে যাচ্ছেন সময়ের অন্যতম সেরা এই ফুটবলার। কিন্তু না, বড় কোনো শাস্তি হয়নি।

ব্রাজিলে অনুষ্ঠিত কোপার সবশেষ আসরে সেমি-ফাইনাল থেকে বিদায় নেয় আর্জেন্টিনা। পরে তৃতীয়স্থান নির্ধারণী ম্যাচ শেষে কনবেমলকে রীতিমত ধুয়ে দিয়েছিলেন লিওনেল মেসি। সংস্থাটির বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ তুলে বলেছিলেন, প্রতিযোগিতাটিতে ব্রাজিলকে চ্যাম্পিয়ন করতে আগে থেকেই সব ঠিক করে রাখা হয়েছে। এমন মন্তব্যের জন্য শাস্তি অপেক্ষা করছিল আর্জেন্টাইন অধিনায়কের জন্য। দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা পেয়ে আগামী কোপা ও বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব মিস করার সম্ভাবনাও জেগেছিল।

শেষ পর্যন্ত অল্পের ওপর দিয়েই পার পাচ্ছেন মেসি। ১৫০০ ডলার জরিমানা ও বাছাইপর্বে এক ম্যাচ নিষেধাজ্ঞায় থাকতে হচ্ছে পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলারকে।

তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে চিলির বিপক্ষে লাল কার্ড দেখায় রেফারির ওপর বেজায় ক্ষুব্ধ ছিলেন মেসি, ম্যাচের পর মেডেলও নিতে আসেননি। রেফারি ও কনমেবলকে নিয়ে করা মন্তব্যের প্রতিবাদ জানায় দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবল নিয়স্ত্রণ সংস্থাটি। এক বিবৃতিতে জানিয়েছিল, কনমিবলের বিরুদ্ধে আনা মেসির অভিযোগ সত্য নয়। মেসি অবশ্য পরবর্তীতে তার কথার জন্য ক্ষমা চেয়েছিলেন।

এদিকে কনমিবলের বিরুদ্ধে সমালোচনা করে শাস্তি পেতে হচ্ছে আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশনের প্রধান ক্লদিও তাপিয়াকে। কনমিবলের সমালোচনা করে ৩ জুলাই একটি খোলা চিঠি লিখেছিলেন তাপিয়া। এই কারণে তাপিয়াকে বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া ফিফা কাউন্সিলের সদস্য থেকে সরিয়ে দিচ্ছে কনমিবল। গত বছরের অক্টোবরে ৩৭ সদস্যের এই কমিটিতে জায়গা পেয়েছিলেন তিনি।

মন্তব্য