| প্রচ্ছদ

সরকারি ওই কল সেন্টারে জানানো যাবে অভিযোগও

ডিসি, এসপি কিংবা ইউএনওকে টেলিফোনে পেতে চান, কল করুন ‘৩৩৩’ নম্বরে

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ২৩৮ বার। প্রকাশ: ২৫ জুলাই ২০১৯ ।

আপনি দেশে থাকেন অথবা বিদেশে- জরুরী ভিত্তিতে জেলা প্রশাসক কিংবা পুলিশ সুপারসহ সরকারি কোন কর্মকর্তার ফোন নম্বর তাৎক্ষণিক প্রয়োজন। কিন্তু হাতের কাছে পাচ্ছেন না! পরিচিত অনেকের সঙ্গে যোগাযোগ করেও কাঙ্ক্ষিত সেই নম্বর পাচ্ছেন না তো? চিন্তা কররেবন না, আপনার জন্য সরকার নিজেই তার সেবার দ্বার উন্মুক্ত করেছে। কল করুন সরকারি কল সেন্টারে।
যদি আপনি দেশে থাকেন তাহলে কল করুন ‘৩৩৩’ নম্বরে। আর প্রবাসী হলে ডায়াল করুন ‘০৯৬৬৬৭৮৩৩৩’ নম্বরে। সম্পূর্ণ বিনা খরচে জরুরী সব সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করেছে সরকারের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম। সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অধীন ওই কল সেন্টারের মাধ্যমে সরকারি যে কোন সেবা প্রাপ্তি এবং জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মচারীদের সাথে যোগাযোগের তথ্যও মিলবে। 
বৃহস্পতিবার সকালে নিজ কার্যালয়ে সম্মেলন কক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বগুড়া জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ। তিনি জানান, কল সেন্টার থেকে শুধু সরকারি কর্মকর্তা কিংবা জনপ্রতিধিদের ফোন নম্বরই নয় ক্ষেত্র বিশেষে প্রেসক্লাবের মত বেসরকারি ও স্বেচ্ছাসেবী গুরুত্বপূর্ণ সংগঠন বা কার্যালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দদের নম্বরও মিলতে পারে। এছাড়া ‘৩৩৩’ এর
SMS, Phus-Pull SMS USSD প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য প্রদান এবং যাচাই করারও সুযোগ রয়েছে।
কল সেন্টার ৩৩৩ এর ব্যাপক প্রচারণা সংক্রান্ত  সংবাদ সম্মেলনে জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ জানান, সরকারের কেন্দ্রীয় তথ্য, সেবা ও অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা বাস্তবায়নের জন্য প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব আহমেদ ওয়াজেদের নির্দেশনায় প্রায় এক বছর আগে ২০১৮ সালের ১২ এপ্রিল কল সেন্টার ‘৩৩৩’ চালু করা করা হয়েছে। জনগণের দোরগোড়ায় সেবা প্রদান নিশ্চিত করাই এরই উদ্দেশ্য। সম্প্রতি অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসক সম্মেলনে জেলা প্রশাসকদেরকে ওই কল সেন্টারের ব্যাপারে প্রচার চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
সপ্তাহের ৭দিন চব্বিশ ঘন্টা চালু থাকা কল সেন্টারের মাধ্যমে নাগরিকরা সামাজিক সমস্যা প্রতিকারের জন্য জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করতে পারবেন। এমনকি সাহায্য প্রত্যাশী যে কোন ব্যক্তি সরাসরিও অভিযোগ জানাতে পারবে। প্রবাসীরাও যাতে সরাসরি কল সেন্টারে যোগাােগ করতে পারেন সেই সুবিধাও রাখা হয়েছে। তবে তাদের যোগাযোগের নম্বরটি আলাদা, আর সেটি হলো- ০৯৬৬৬৭৮৩৩৩।
বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ জানান, কল সেন্টারে যোগাযোগ করে সরকারের যে কোন তথ্যও পাওয়া যাবে। তবে সেই তথ্য যদি ব্যাপক ভিত্তিক হয় তাহলে সেটি তাৎক্ষণিকভাবে দিতে না পারলেও দু’একদিন সময় নিয়ে সরবরাহ করা হবে। এক্ষেত্রে তিনি খাস সম্পত্তি সংক্রান্ত তথ্যের উদাহরণ দিয়ে বলেন, ‘ধরুন কল সেন্টারে ফোন করে কেউ জানতে চাইলেন যে বগুড়ায় সরকারি খাস সম্পত্তির পরিমাণ কত? এ ধরনের তথ্যও আমারা দিব। তবে এটা হয়তো তাৎক্ষণিকভাবে দেওয়া সম্ভব হবে না। এজন্য  দু’একদিন সময় প্রয়োজন। তবে কতদিন সময় লাগবে সেটি আমরা প্রশ্নকর্তাকে জানিয়ে দেব।’
এক প্রশ্নের জবাবে জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ জানান, বর্তমানে চালু থাকা ‘৯৯৯’ নম্বরটি শুধুমাত্র আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত সেবা পাওয়ার জন্য। আর কল সেন্টার ‘৩৩৩’ আরও বৃহৎ পরিসরে সেবা দিবে। এমনকি ‘৩৩৩’ নম্বরে ফোন করেও আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত জরুরী সেবাও পাওয়া যাবে।  বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুল মালেক জানান, যেসব ক্ষেত্রে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতা প্রয়োজন সেগুলো তাৎক্ষণিকভাবে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।
সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের মধ্যে বগুড়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল আলম নয়ন, বগুড়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য শংকর, রেজাউল হাসান রানু, সিনিয়র সাংবাদিক সমুদ্র হক, এএইচএম আখতারুজ্জামান, বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আমজাদ হোসেন মিন্টুসহ প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য