| প্রচ্ছদ

স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে স্ত্রীও আহত

বগুড়ার শেরপুরে ব্যাবসায়ীকে হত্যা করে খামারের গরু-খাসি লুট

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৮৪ বার। প্রকাশ: ২৭ জুলাই ২০১৯ ।

বগুড়ার শেরপুরে গরু ও চাতাল ব্যাবসায়ীকে হত্যা করে তিন ষাঁড় গরু, দুইটি খাসি ও নগদ টাকাসহ প্রায় তিন ভরি স্বর্ণালংকার লুট করে পালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। নিহত ওই ব্যাবসায়ীর নাম শাহজাহান আলী (৬০)। এসময় তার স্ত্রী বাঁধা দিলে তাকেও পিটিয়ে আহত করা হয়। গুরুত্বর আহত স্ত্রী মেরিনা বেগমকে (৫০) উদ্ধার করে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর বাজারের খুদি সাহার পুকুরপাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।


স্থানীয় এলাকাবাসী জানান, প্রায় সাত বছর আগে ধুনট উপজেলার চিকাশি ইউনিয়নের হটিয়ারপাড়া গ্রামের আব্দুস সামাদের ছেলে শাহজাহান আলী তার স্ত্রী মেরিনা বেগমকে নিয়ে শেরপুর উপজেলায় আসেন। ভবানীপুর বাজারের অলিউদ্দিনের মালিকাধীন চাতাল ও বাড়ি ভাড়া নিয়ে বসবাস শুরু করেন। চাতাল ব্যাবসার পাশাপাশি তিনি গরু-ছাগলের ব্যবসাও করতেন। এজন্য বাড়িতে খামার গড়ে তিনি গরু ও ছাগল পালন করে থাকেন। এরই ধারাবাহিকতায় আসন্ন কোরবানি ঈদকে ঘিরে বিক্রির উপযোগী তিনটি বড় আকারের ষাঁড় গরু ও তিনটি খাঁসি তার খামারে ছিল। তবে ধান-চালের ব্যবসায় মন্দার কারণে বেশকিছুৃদিন ধরেই চাতাল বন্ধ রেখেছেন বলে তারা জানান।


উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আহত মেরিনা বেগম জানান, রাত তখন দুইটা আড়াইটার মতো হবে। অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা বাড়িতে প্রবেশ করে। তখন তারা ঘুমিয়ে ছিলেন। পরে ঘুমের মধ্যেই স্বামী শাহজাহান আলীর হাত-পা বেঁধে ফেলে দুর্বৃত্তরা। তখন কে কে বলে চিৎকার দিয়ে উঠলে তার শরীরে চাকু দিয়ে আঘাত করা হয়। তারপরও স্বামী নড়াচড়া করতে থাকলে শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করা হয়।

এদিকে স্বামীর গোংড়ানির শব্দে ঘুম ভেঙে যায় স্ত্রী মেরিনার। তৎক্ষনাৎ দুর্বৃত্তরা তাকে পেটাতে থাকে। এতে তিনি আহত হয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে যান। এই সুযোগে তার গলায় থাকা সোনার চেইন, কানের দুল, নাক ফুল খুলে নেয় দুর্বত্তরা। ঘরে সবকিছু তছনছ করে বেশ কিছু নগদ টাকা ও সবমিলে প্রায় তিন ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নেয় দুর্বৃত্তরা।

পরে কোরবানি ঈদে বিক্রির উপযোগী খামারে থাকা তিনটি বড় আকারের ষাঁড় গরু ও দুইটি খাঁসি লুট করে নিয়ে যায় তারা। শনিবার ভোররাতে প্রতিবেশীরা ঘটনাটি টের পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে এবং আহত মেরিনাকে উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে দেয়।


শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বুলবুল ইসলাম বলেন, 'এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে ব্যাপক পুলিশি তৎপরতা চলছে। পাশাপাশি নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া উক্ত ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হবে।'

মন্তব্য