| প্রচ্ছদ

সম্পত্তি বেড়েছে বিজেপির

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩১ বার। প্রকাশ: ০১ অগাস্ট ২০১৯ ।

 

মাত্র এক বছরের ব্যবধানে সম্পত্তি বেড়েছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি)।

একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রকাশ করা জরিপের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকার প্রতিবেদনে বৃহস্পতিবার এতথ্য জানানো হয়েছে। খবর সমকাল

লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে অর্থ ছড়ানোর অভিযোগ উঠেছিল। ব্যালান্স শিট বলছে, বিজেপির সম্পত্তির পরিমাণ ক্রমবর্ধমান।

জাতীয় রাজনীতিতে ক্রমশ ক্ষয়িষ্ণু শক্তিতে পরিণত হলেও বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি) সম্পদের নিরিখে দেশে তৃতীয় বৃহত্তর দল। তবে বঙ্গের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল সে-সব থেকে কয়েক হাজার মাইল দূরেই রয়েছে। কারণ, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে তাদের সম্পত্তির পরিমাণ ২৯.১ কোটি টাকা।

বুধবার দেশের সাতটি সর্বভারতীয় দল সম্পত্তির হিসেব প্রকাশ করেছে অ্যাসোসিয়েশন অব ডেমোক্র্যাটিক রিসার্চ (এডিআর)। তাতে দেখা যাচ্ছে, ২০১৬-১৭ সালের তুলনায় ২০১৭-১৮ সালে বিজেপির সম্পত্তির পরিমাণ ২৭০ কোটি টাকা বেড়েছে। ২০১৬-১৭ সালে নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহদের দলের সম্পত্তি ছিল ১২১৩.১৩ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ সালে তা বেড়ে হয়েছে ১৪৮৩.৩৫ কোটি।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা কংগ্রেসের সম্পত্তির পরিমাণ ১৫.২৬ শতাংশ কমেছে। ২০১৬-১৭ সালে শতাব্দীপ্রাচীন দলটির সম্পত্তি ছিল ৮৫৪.৭৫ কোটি টাকা। ২০১৭-১৮ সালে তা কমে হয়েছে ৭২৪.৩৫ কোটি। সংসদে বা বিধানসভায় শক্তি হ্রাস পেলেও সম্পত্তি বৃদ্ধিতে অবশ্য অসুবিধা হয়নি বিএসপি-র। ২০১৭-১৮ সালে তাদের সম্পত্তির পরিমাণ হয়েছে ৭১৬.৭২ কোটি টাকা।

সম্পত্তি নিয়ে দেশের রাজনৈতিক দলগুলির সম্পত্তির নিরিখে তৃতীয় স্থানে মায়াবতীর দল। অথচ ২০১৬-১৭ সালে তা ছিল ৬৮০.৬৩ কোটি টাকা।

ভোটে রক্তরক্ষণ ক্রমশ বাড়লেও সম্পত্তির নিরিখে দেশে চতুর্থ স্থানে সিপিএম। ২০১৭-১৮ সালে তাদের সম্পত্তি পরিমাণ ৪৮২.১ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭ সালে তা ছিল ৪৬৩.৭৬ কোটি। কয়েক দিন আগেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, তারা গরিবেব পার্টি। এডিআর-এর হিসেব সেই বক্তব্যকেই আরও জোরালো করছে। কারণ, এক বছরের ব্যবধানে তিন কোটির কম সম্পত্তি বেড়েছে মমতার দলের। ২০১৬-১৭ সালে জোড়াফুলের সম্পত্তি ছিল ২৬.২৫ কোটি টাকা।

সম্পত্তির নিরিখে মোদির দলের তুলনায় সনিয়া-রাহুল গান্ধীদের দল ক্রমশ পেছলেও ঋণের ক্ষেত্রে অনেকটা এগিয়ে আছে। ২০১৭-১৮ সালে কংগ্রেসের ঋণের পরিমাণ ৩২৪.২ কোটি টাকা। বিজেপির মাত্র ২১.৩৮ কোটি। এ ক্ষেত্রে পদ্ম শিবিরের কাছেই রয়েছে তৃণমূল। তাদের ঋণ ১০.৬৫ কোটি টাকা। সর্বভারতীয় দলের ক্ষেত্রে সব চেয়ে কম ঋণ বিএসপি-র। ২০১৭-১৮ সালে তাদের ঋণ ১.৭৫ কোটি টাকা।

অনেক রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকের মতে, দীর্ঘ পাঁচ দশকের বেশি দেশের শাসনক্ষমতায় ছিল কংগ্রেস। তাই বিজেপির তুলনায় কংগ্রেসের সম্পত্তির পরিমাণ এত কম হওয়ার কথা নয়। আর তৃণমূল নামের সামনে সর্বভারতীয় দলের তকমা থাকলেও আদতে মমতার দলের কর্মকাণ্ড বঙ্গেই সীমাবদ্ধ। ফলে সম্পত্তির পরিমাণ খুব বেশি বাড়ার সুযোগ নেই জোড়াফুলের।

মন্তব্য