| প্রচ্ছদ

র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

বগুড়ার খান মার্কেটে চার ফার্মেসিকে লাখ টাকা জরিমানা

স্টাফ রিপোর্টার
পঠিত হয়েছে ৮৮৫ বার। প্রকাশ: ০১ অগাস্ট ২০১৯ ।

অনুমোদনহীন ও ফ্রি সেম্পলের ওষুধ বিক্রির জন্য দোকানে রাখার দায়ে বগুড়ার খান মার্কেটে চার ফার্মেসিকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাব-১২ বগুড়া স্পেশাল কোম্পানির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে ওই অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। 

এসময় খান মার্কেটে ওষুধের দোকানে র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চলাকালে একজোট হয়ে অন্য ফার্মেসি ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে রাস্তায় অবস্থান নেন। ভ্রাম্যমান আদালতের টিম চলে যাওয়ার পর আবার দোকান খোলা হয়। 

জানা গেছে, দুপুরের দিকে র‌্যাব-১২ বগুড়া স্পেশাল কোম্পানির নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে একটি দল শহরের খান মার্কেটে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনা করতে যায়। এসময় আদালত অনুমোদনহীন ও ফ্রি সেম্পলের ওষুধ বিক্রির জন্য দোকানে রাখায় মডার্ন ফার্মেসি, আর কে ফার্মেসী, ফাহিম ফার্মেসি ও সেলিন ফার্মেসিকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে। 

এক পর্যায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্য সকল ওষুধ ব্যবসায়ীরা একের পর এক দোকান বন্ধ করে দেন। এরপর তারা শহরের সাতমাথা রাস্তায় অবস্থান নেন। এ সময় ব্যবসায়ীদেরকে রাস্তা থেকে সরিয়ে দিতে গেলে পুলিশের ওপর চড়াও হয় তারা। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদেরকে ছত্রভঙ্গ করে দেয় এবং একজনকে আটক করে। ভ্রাম্যামান আদালতের টিম চলে গেলে পরে দোকানপাট খোলা হয়।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা শেষে র‌্যাবের পক্ষ থেকে এক প্রেস ব্রিফিং এ র‌্যাব-১২ বগুড়ার স্পেশাল কোম্পানীর কমান্ডার মেজর এস এম মোর্শেদ হাসান বলেন, 'ওই মার্কেটে ৪টি ফার্মেসীতে অনুমোদনহীন ও ওষুধের ফ্রি সেম্পল পাওয়া গেছে যা বিক্রির জন্য রাখা হয়েছিল। তাদের ভ্রাম্যমান আদালত জরিমানা করেন।'

অপরদিকে বগুড়া জেলা কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতির পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তাক বলেন , ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় কেউ বাধা দেয়নি। দোকান বন্ধ করা হলেও পরে খোলা হয়েছে। তিনি আটককৃত ব্যবসায়ীর মুক্তির দাবি জানান।

মন্তব্য