| প্রচ্ছদ

তামিমকে বিশ্রাম নিতে বললেন সাকিব

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪১ বার

বিশ্রাম নেওয়ায় সাকিব আল হাসান লংকা সফরে যাননি। কিন্তু পূর্ণ বিশ্রাম তিনি পাচ্ছেন কই। সকালের সূর্য মাথার ওপরে ওঠার আগে সাকিব আসেন মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। সদ্য প্রয়াত বাংলাদেশ দলের প্রথম অধিনায়ক শামিম কবিরের জানাজায় অংশ নেন। এরপর ছোটেন বনানী বিদ্যানিকেতন স্কুল অ্যান্ড কলেজে। ডেঙ্গু সচেতনতা নিয়ে সেখানে কথা বলেন তিনি। শুক্রবারই ছুটবেন হজ পালন করতে। ডেঙ্গু সচেতনতা নিয়ে অনেক পরামর্শ দিতে হয়েছে সাকিবকে। পরামর্শ দিয়েছেন তামিমকেও। বন্ধুকে বলেছেন ভালো একটা বিশ্রাম নিতে।

শ্রীলংকার বিপক্ষে ধবলধোলাই হয়ে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। নিজে না খেললেও হারে হতাশ সাকিব। নিশ্চয় আশা করেছিলেন সতীর্থরা তাকে ছাড়াই জয় নিয়ে ফিরতে পারবেন। বিশ্বকাপের আগেই তো, তাকে ছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে হারিয়েছে বাংলাদেশ। কিন্তু দল এবার হতাশ। অধিনায়ক এবং দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে ব্যর্থ তামিম ইকবালও।

তবে সাকিব মনে করছেন তামিম এই দুঃসময় কাটিয়ে উঠবেন। সেজন্য তামিমকে কিছু পরামর্শও দিয়েছেন সাকিব, 'একজন ক্রিকেটারের এমন সময় আসতেই পারে। আমার মনে হয় ওর খুব ভালো একটা বিশ্রাম নেওয়া দরকার। সতেজ হওয়া, নিজেকে ফিরে পাওয়া এবং ফর্মে ফিরে আসার জন্য এটা দরকার। আমি নিশ্চিত তামিম ফিরে আসবে।'

মাশরাফির সময় ফুরিয়ে এসেছে। দল তার নেতৃত্ব মিস করেছে। কিন্তু মাশরাফি ছাড়া দ্রুতই মানিয়ে নিতে হবে দলবে। তবে সাকিবকে ছাড়া মানিয়ে নেওয়া কঠিন। আগেও কঠিন হয়েছে। বিশ্বকাপে যে ফর্ম সাকিব দেখিয়েছেন। তাতে মনে হতেই পারে সাকিব থাকলে ফল ভিন্ন হতে পারতো। তবে সাকিব তা মনে করেন না, 'আমি গেলে ভালো না খেলতে পারতাম। টানা তিন ম্যাচে শূন্য রানে আউট হতে পারতাম। কোনো অবদান না-ও রাখতে পারতাম।'

শুধু ফর্ম নয় পারফর করতে মানসিক প্রস্তুতিও গুরুত্বপূর্ণ। সাকিব তাই বলেন, 'একজন ক্রিকেটার যখন তৈরি থাকেন, তখনই তার খেলা উচিত। ফিট না থেকে খেলা কঠিন, পারফরম্যান্সে প্রভাব ফেলে। আধুনিক ক্রিকেটে এত ম্যাচ, সেই চাপ সামলেই খেলতে হবে। বিশ্রাম নেওয়ার তাই দরকার আছে। এতে অন্যদের সুযোগ আসে। পাইপলাইন তৈরি হয়। তবে বিশ্রাম নিতে গিয়ে ভুল-বোঝাবুঝি যাতে না হয়, সেভাবে সমন্বয় করে সিদ্ধান্তে আসতে হবে।'

মন্তব্য