| প্রচ্ছদ

পারস্য উপসাগরে আরেকটি বিদেশি তেলবাহী ট্যাঙ্কার আটক ইরানের

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৫ বার। প্রকাশ: ০৪ অগাস্ট ২০১৯ ।

তেল পাচারের অভিযোগে আরেকটি বিদেশি তেলবাহী ট্যাঙ্কার আটক করেছে ইরানের বিপ্লবী বাহিনী। এ সময় ট্যাঙ্কারটিতে সাতজন নাবিক ছিল। তাদেরকেও আটক করা হয়েছে। খবর বিবিসি 

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে বলা হয়, ইসলামিক রেভ্যুলিউশনারি গার্ড কর্পসের (আইআরজিসি) নৌরক্ষীরা পারস্য উপসাগর থেকে একটি বিদেশি তেলের ট্যাঙ্কার জব্দ করেছে, যেটি তেল চোরাচালান করছিল। এ ঘটনায় জাহাজের ৭ নাবিককে আটক করা হয়েছে। ট্যাঙ্কারটিতে ৭ লাখ লিটার তেল ছিল।

ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের উত্তেজনা চলার মধ্যে জুলাইতে উপসাগরীয় এলাকা থেকে ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাঙ্কার স্টেনা ইম্পেরো আটক করে ইরান। ওই সময়ে আন্তর্জাতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ এই জাহাজ আটকে পরিবহন রুটে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

প্রাথমিকভাবে তেহরানের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় ইরানের একটি মাছ ধরা নৌকার সঙ্গে ধাক্কা লাগার পর ব্রিটিশ ট্যাঙ্কারটি আটক করা হয়। পরে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, আটকের সময় তাদের জাহাজটি ওমানের জলসীমায় ছিল।

প্রসঙ্গত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সঙ্গে হওয়া পারমাণবিক চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিলে পশ্চিমাদের সঙ্গে ইরানের সম্পর্কে সংকট শুরু হয়। চলতি বছরে ওমান ও পারস্য উপসাগরে বিভিন্ন তেলের ট্যাংকারে হামলার ঘটনা ঘটেছে। যুক্তরাষ্ট্র ইরানকে এ সব হামলায় দায়ী করলেও ইরান তা অস্বীকার করে।

গত ৪ জুলাই ব্রিটেন নিয়ন্ত্রিত জিব্রাল্টার থেকে ইরানের তেলের ট্যাংকার আটক করে ব্রিটিশ রয়েল নৌসেনারা। যুক্তরাজ্যের দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে ওই জাহাজে করে সিরিয়ায় তেল সরবরাহ করা হচ্ছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইরানও ব্রিটিশ পতাকাধারী তেলের ট্যাংকার জব্দ করেছিল।

মন্তব্য