| প্রচ্ছদ

ফ্লাইবোর্ডে চড়ে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৩ বার। প্রকাশ: ০৫ অগাস্ট ২০১৯ ।
জেটচালিত ফ্লাইবোর্ডে চড়ে প্রথমবারের সফলভাবে ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়েছেন ফরাসি বিনিয়োগকারী ফ্র্যাংক জাপাটা।

রোববার ইংলিশ চ্যানেলের তীরবর্তী শহর ক্যালের পাশে সাংগাঁত থেকে যাত্রা শুরু করে ডোভারের সেইন্ট মার্গারেট’স বে-তে পৌঁছেছেন ৪০ বছর বয়সী সাবেক জেট-স্কি চ্যাম্পিয়ন জাপাটা। ৩৫.৪ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিতে তার সময় লেগেছে ২২ মিনিট-- খবর বিবিসি’র। 

কেরোসিন ভর্তি ব্যাকপ্যাক থেকে জ্বালানি পায় ফ্লাইবোর্ডটি। এর আগে রিফুয়েলিং জটিলতায় ২৫ জুলাই প্রথম প্রচেষ্টায় ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিতে ব্যর্থ হন জাপাটা।

রোববারের সাফল্যের পর অশ্রুসিক্ত নয়নে জাপাটা বলেন, “তিন বছর আগে আমরা একটি মেশিন বানাই এবং এখন এটি নিয়ে আমরা চ্যানেল পাড়ি দিয়েছি। এটি ঐতিহাসিক কিনা, আমি সিদ্ধান্ত দেওয়ার কেউ নই, এটা সময় বলে দেবে।”

ফ্লাইবোর্ড নিয়ে ওড়ার সময় ঘন্টায় সর্বোচ্চ ১৭০ কিলোমিটার গতি তোলার দাবি করেছেন তিনি। উড্ডয়নের সময় তার সবচেয়ে বড় বাধা ছিল রিফুয়েলিংয়ের জন্য আরেকটি ব্যাকপ্যাকের সঙ্গে যুক্ত করা।

আগের চেষ্টায় দ্বিতীয় ব্যাকপ্যাক বহনকারী নৌকার কাছে পৌঁছানোর আগেই সাগরে পড়ে গিয়েছিলেন এই ফরাসি বিনিয়োগকারী।

এবারের চেষ্টায় একটি বড় নৌকা এবং প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে তিনটি হেলিকপটার ব্যবহার করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

আগের মাসে প্যারিসে বার্ষিক বাস্তিল ডে প্যারেডে সেনা মহড়ায় ভবিষ্যতের ফ্লাইবোর্ড নিয়ে অংশ নেওয়ায় প্রথম নজরে আসেন জাপাটা। একই প্রযুক্তি বানানোর চেষ্টা করছে ফরাসি সেনাবাহিনী। সম্প্রতি জাপাটার প্রতিষ্ঠান জেড-এয়ার কে ১৪ লাখ মার্কিন ডলারের তহবিলও দিয়েছে তারা।

ফ্রান্স ইন্টার রেডিওর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে ফরাসি প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লি বলেন, বিভিন্ন কাজে ফ্লাইবোর্ড ব্যবহার করা যেতে পারে “যেমন উডুক্কু লজিস্টিকাল প্ল্যাটফর্ম বা অ্যাসল্ট প্ল্যাটফর্ম হিসেবে।”

মন্তব্য