| প্রচ্ছদ

ডেঙ্গু, গুজব ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সচেতনতা বাড়াতে

বগুড়ায় জেলা পুলিশের আয়োজনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের নিয়ে সমাবেশ

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ১৪৫ বার। প্রকাশ: ০৬ অগাস্ট ২০১৯ ।

ডেঙ্গু, গুজব ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সামাজিক সচেতনতা বাড়াতে বগুড়া জেলা পুলিশের আয়োজনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানদের নিয়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর সম্মেলন কক্ষে পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁঞার সভাপতিত্বে ওই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় জেলার ১২টি উপজেলার পাঁচ শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ ওই সমাবেশে অংশ নেন। অনুষ্ঠানে প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল; “ডেঙ্গু, গুজব ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে সচেতনতাই যথেষ্ট”।

জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাপস কুমার পালের সঞ্চালনায় সমাবেশের শুরুতেই শোকাবহ আগস্ট মাস উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য হাবিবর রহমান বলেন, 'সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে ডেঙ্গু পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে হবে। এডিস মশার হাত থেকে বাঁচতে আমাদের চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। এজন্য সবাইকে সতর্ক করতে হবে। যাতে করে সবাই মাঠে নামেন। এই মশার বংশ বিস্তার ও প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস করতে আশপাশের এলাকা ও কর্মস্থল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে রাখেন। এক্ষেতে সবাইকে সাবধান হতে হবে এবং আমাদের করণীয় যথাযথভাবে পালন করতে হবে।' 

এসময় সমাবেশে সমাপনি বক্তব্য রাখেন জেলার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঁঞা। তিনি বলেন, 'শিক্ষক মানুষ গড়ার কারিগর। এছাড়া সমাজকে জাগ্রত করতেও শিক্ষকদের ভূমিকা রাখতে হবে। বিশেষ করে বাল্যবিয়ের কুফল সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে। এছাড়া দেশে বিশৃঙখলা সৃষ্টি করার জন্য যারা নানা গুজব ছড়ায়, তাদের সম্পর্কে সতর্ক হওয়ার পাশাপাশি ওই চক্রটি প্রতিরোধে শিক্ষকদের বলিষ্ঠ ভূমিকা পালনের আহবান জানান তিনি।'

এছাড়াও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক ফয়েজ আহাম্মদ, বগুড়ার সিভিল সার্জন গওসুল আজিম চৌধুরী, বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজের অধ্যক্ষ ড. শাহজাহান আলী, পল্লী উন্নয়ন একাডেমীর অতিরিক্ত মহা পরিচালক আব্দুস সামাদ, ইউএনএফপিএ এর প্রতিনিধি তামিমা নাসরিন, বগুড়া পুলিশ লাইন্স স্কুল এ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ শাহাদত আলম ঝুনু।

পরে অনুষ্ঠানের প্রধান ও বিশেষ অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছার মধ্যেদিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

মন্তব্য