| প্রচ্ছদ

কাশ্মীরে এখন ধ্বংসযজ্ঞ চালাবে ভারত, দোষ হবে পাকিস্তানের: ইমরান

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৬২ বার। প্রকাশ: ০৬ অগাস্ট ২০১৯ ।

ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাম্মীরকে সংবিধানের মাধ্যমে দেওয়া বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর এখন ওই অঞ্চলে ভারত সরকার ধ্বংসযঞ্জ চালাবে বলে মন্তব্য করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

মঙ্গলবার পার্লামেন্ট অধিবেশনে জম্মু-কাশ্মীর প্রসঙ্গ নিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন বলে ডনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইমরান খান বলেন, এখন তারা (ভারত) জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের ওপর আরও কঠোর ধ্বংসযঞ্জ চালাবে। তারা সেখানকার জনগণের ওপর পাশবিক নির্যাতন চালিয়ে তা আড়াল করার চেষ্টা করবে। তারা এসব করে আবার আমাদের ওপর দোষ চাপাবে। ভারত আমাদের ওপর আঘাতও হানতে পারে; তবে আমরাও এর প্রতিঘাত করব।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার তো ভয় হচ্ছে; তারা কাশ্মীরের জনগণের ওপর জাতিগত নিধন চালাতে পারে, সবাইকে উচ্ছেদ করে দিতে পারে। পুলাওয়ামার মতো কাণ্ড ঘটতে যাচ্ছে আবার। এটা যে ঘটবে; তা আমি ভবিষ্যদ্বাণী করতে পারি।

সোমবার ভারতের রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিলের ঘো্ষণা দেন। এর মধ্য দিয়ে ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের ৭০ বছরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে নরেন্দ্র মোদির সরকার। সংবিধানের এই ৩৭০ ধারা বাতিলের মাধ্যমে জম্মু-কাশ্মীরকে ভেঙে দুই ভাগ করা হয়।

৩৭০ ধারার ফলে অনেক ক্ষেত্রেই স্বায়ত্তশাসিত ছিল জম্মু-কাশ্মীর। নিজস্ব সংবিধান, আলাদা পতাকা ও স্বতন্ত্র আইন বানানোর অধিকার ছিল ওই অঞ্চলের বাসিন্দাদের। তবে ৩৭০ ধারা বাতিলের ফলে এখন থেকে জম্মু-কাশ্মীরের পরিচিতি হবে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে।

ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তে কঠোর সমালোচনা করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, কাশ্মীরে যা ঘটেছে; তা-ই দেশটির সরকারের আদর্শ। তারা বর্ণবাদী আদর্শের ধারক। তারা তাদের দেশ এবং আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করেছে।

তিনি বলেন, কাশ্মীরে কী হচ্ছে তা বিশ্বনেতাদের জানাতে চাই। সেখানে কী ঘটছে সে সম্পর্কে অনেকেই জানেন না। সেখানকার মুসলিম সম্প্রদায় এবং সংখ্যালঘুদের সঙ্গে কী হচ্ছে তা সবাইকে জানাব। 

মন্তব্য