| প্রচ্ছদ

বগুড়ার শেরপুরে আন্ত:জেলা ডাকাতদলের চার সদস্য গ্রেফতার

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৭৮৫ বার। প্রকাশ: ১০ অগাস্ট ২০১৯ ।

বগুড়ার শেরপুরে হিজড়া সদস্য (তৃতীয় লিঙ্গ) বোঝাই মাইক্রোবাসে ডাকাতির ঘটনায় আন্ত:জেলা ডাকাত দলের চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিবাগত রাতে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (শেরপুর সার্কেল) মো. গাজিউর রহমানের নেতৃত্বে শেরপুর থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবির ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. বুলবুল ইসলাম শেরপুর, শাজাহানপুর ও সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন-জেলার নন্দীগ্রাম উপজেলার বাশো গ্রামের সমেজ উদ্দীনের ছেলে গোলাম রব্বানী (২৭), ধুনট উপজেলার নাংলু গ্রামের আব্দুল বাসেতের ছেলে রেজাউল করিম (২৮), সোনাতলা উপজেলার লোহাগাড়া গ্রামের আহম্মেদ প্রামাণিকের ছেলে মো. শামীম (৩০) ও রংপুর জেলার বিষ্ণপুর গ্রামের জতিন চন্দ্রের ছেলে সুবাল চন্দ্র (৪০)।
শনিবার বিকেলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. গাজিউর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গ্রেফতারকৃতরা আন্ত:জেলা ডাকাত দলের সক্রিয় সদস্য। এরা বগুড়াসহ বিভিন্ন জেলায় দীর্ঘদিন ধরে ডাকাতি, চুরিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকা-ে জড়িত ছিল। এরই ধারাবাহিকতায় গত ২৬জুন রাতে শেরপুর-নন্দীগ্রাম আঞ্চলিক সড়কের উপজেলার কাশিপাড়া নামকস্থানে গাছ ফেলে বেরিকেড সৃষ্টি করে হিজড়াদের মাইক্রোবাস আটকে ডাকাতির ঘটনা ঘটায়। সংঘবদ্ধ ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে এবং মারপিট করে স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন সেট লুটে নেয়। সশস্ত্র ডাকাতদের মারপিটে দুই হিজড়া সদস্য গুরুতর আহত হন বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা। শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বুলবুল ইসলাম জানান, রাজশাহী বিভাগীয় হিজড়া গুরু হিরা খানসহ মোট আটজন হিজড়া ওই মাইক্রোবাসে ছিলেন। তারা রাজশাহী থেকে শেরপুর শহরের কলেজ রোডস্থ হিজড়া সর্দার সন্তোষের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগদিতে আসছিলেন। কিন্তু পথিমধ্যে আঞ্চলিক সড়কটির উক্ত এলাকায় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসে ডাকাতি হয়। উক্ত ঘটনায় থানায় একটি মামলা নেয়া হয়। পরবর্তীতে সার্কেল স্যারের নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার ছোনকা বাজার, শাজাহানপুর উপজেলা পরিষদের গেট ও বগুড়া শহরের শাকপালা এলাকায় অভিযান চালিয়ে আন্ত:জেলা ডাকাতদলের ওইসব সদস্যদের গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া গ্রেফতারকৃতদের শনিবার দুপুরেই আদালতে পাঠানো হয়েছে বলে এই পুলিশ কর্মকর্তা জানান।

মন্তব্য