| প্রচ্ছদ

ইমরান খানের পরামর্শেই পাকিস্তানের কোচ ছাঁটাই

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৯ বার

বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে শেষ চারটি ম্যাচে জিতলেও রানরেটের হিসেবে নিউজিল্যান্ডের চেয়ে পিছিয়ে থাকায় সেমিফাইনালে ওঠা হয়নি পাকিস্তানের। গ্রুপপর্ব থেকে বিদায়ের পরও অবশ্য পাকিস্তান কোচ মিকি আর্থারের চুক্তি আরও দুই বছরের জন্য নবায়ন হতে পারে বলে শুরুতে শোনা যাচ্ছিল। কিন্তু তা আর হয়নি। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) আর্থারকে বিদায় করে দিয়েছে। এখন শোনা যাচ্ছে, পিসিবি ওই সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ও বোর্ডের প্যাট্রন-ইন-চিফ ও বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি অধিনায়ক ইমরান খানের পরামর্শে।

পিসিবির ‘খুবই বিশ্বাসযোগ্য সূত্র’-এর বরাতে খবরটা দিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম। তারা জানিয়েছে, বিশ্বকাপের পর ক্রিকেটারদের মধ্যে প্রভাবশালী কয়েকজন আর্থারকে নিশ্চয়তা দিয়েছিলেন, তাঁর চুক্তি নবায়ন হচ্ছে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) কয়েকজন প্রভাবশালী কর্মকর্তাও একই কথাই বলেছিলেন। সে কারণেই বিশ্বকাপের পর পাকিস্তানে এসে বেশ কিছুদিন ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকান এ কোচ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত চুক্তি নবায়ন হয়নি, আর্থার এবং তাঁর সহকারীদের ‘না’ করে দেয় পিসিবি। যা শোনার পর আর্থার জানিয়েছিলেন, তিনি ‘খুব হতাশ ও অবাক।’

পিসিবির ওই সূত্রকে উদ্ধৃত করে ভারতের সংবাদমাধ্যম ‘দ্য নিউ ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’ জানিয়েছে, ‘আর্থার অনেক আত্মবিশ্বাসী ছিলেন চুক্তি নবায়নের ব্যাপারে। সে কারণেই তিনি লাহোরে এসেছিলেন, কয়েক দিন ছিলেন। এই প্রত্যাশায় যে তাঁর চুক্তি নবায়ন হবে। কিন্তু পিসিবি যখন ঘোষণা করল তাঁকে আর তাঁর সহকারীদের আর রাখা হচ্ছে না, তখন খুব হতাশ ও অবাক হয়েছিলেন।’

পাকিস্তান বোর্ডের সেই সূত্রই জানিয়েছেন, পিসিবি চেয়ারম্যান এহসান মানি এ চুক্তি নবায়ন করা-না করা নিয়ে ইমরান খানের সঙ্গে আলোচনা করেছিলেন। ইমরান খানই পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর দলের কোচিং ব্যবস্থা নতুন করে সাজাতে হবে।

চুক্তি নবায়ন না হওয়ার বাইরে আরেকটি ব্যাপারেও আর্থার বেশ চমকে গিয়েছিলেন। সংবাদমাধ্যমে যখন খবর বেরিয়েছিল, সরফরাজ আহমেদকে সরিয়ে সাদা বলের ক্রিকেটে শাদাব খান ও লাল বলের ক্রিকেটে বাবর আজমকে পাকিস্তানের অধিনায়ক করতে পরামর্শ দিয়েছেন আর্থার। কিন্তু পিসিবির ওই সূত্র বলছেন, ‘আর্থার এরপর সরফরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। তাঁকে (সরফরাজ) বলেছেন যে, সংবাদমাধ্যমে অধিনায়ক বদলাতে বলেছেন যে খবর বেরিয়েছে, তা সত্যি নয়।’

মন্তব্য