| প্রচ্ছদ

প্রস্তুত ২৭৪৩ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তালিকা, ঘোষণা চলতি মাসের শেষে

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪০ বার। প্রকাশ: ১৩ অগাস্ট ২০১৯ ।

চলতি মাসের শেষে অথবা সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে আড়াই হাজারেরও বেশি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির ঘোষণা আসছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, মন্ত্রণালয়ে ৯ হাজার ৬১৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির আবেদন জমা পড়েছে। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে যাচাই-বাছাই করে ২ হাজার ৭৪৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্তির জন্য যোগ্য বিবেচনা করা হয়েছে। ঈদ পরবর্তী এক মাসের মধ্যেই এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রকাশ করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব সোহরাব হোসেন এ প্রসঙ্গে বলেন, সর্বোচ্চ স্বচ্ছতা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানের তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে। দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে এই জায়গাতে কোনো ছাড় দেওয়া সম্ভব নয়। যেভাবে কাজ এগিয়ে চলছে তাতে মনে হচ্ছে ঈদের পর কিছুদিনের মধ্যেই এমপিও পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা প্রকাশ সম্ভব।

কর্মকর্তারা জানান, যতগুলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির জন্য আবেদন করেছে, তাদের সবার আবেদন গ্রহণ করলে সরকারের খরচ পড়বে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকা। তবে মন্ত্রণালয় যাচাই বাছাইয়ে যেসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে সেগুলোর এমপিওভুক্তি বিপরীতে খরচ হবে দেড় হাজার কোটি টাকা

সংশ্লিষ্টরা জানান, আগস্ট মাসের মধ্যেই এমপিও পাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম প্রকাশ করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে। জুলাই মাসেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির কাজ শেষ করতে শিক্ষামন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছিলেন। কিন্তু বিভিন্ন কারণে কাজটি শেষ করা যায়নি। তবে এমপিও পাওয়া প্রতিষ্ঠানের তালিকা তৈরির কাজ শেষ হয়ে গেছে বলা যায়। নতুন করে কোনো ঝামেলা না বাঁধলে আগস্ট শেষ হওয়ার আগে এমপিও পাওয়া প্রতিষ্ঠান তালিকা প্রকাশ করা সম্ভব।

জানা গেছে, এমপিওভুক্তির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুমোদনের জন্য এরইমধ্যে তালিকা তৈরি করে রেখেছে মন্ত্রণালয়। তিনি অনুমতি দিলেই তালিকা প্রকাশ করা হবে। সেক্ষেত্রে এমপিওভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো ১ জুলাই থেকে এমপিওভুক্ত বলে বিবেচিত হবে।

মন্তব্য