| প্রচ্ছদ

শিশু ধর্ষণ মামলার ২ আসামির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৫ বার

ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর বেড়িবাঁধ থেকে ধর্ষণ মামলার দুই আসামির গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

বুধবার ভোরে পুলিশ লাশ দুইটি উদ্ধার করে সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। 

এ বিষয়ে দুপুরে পুলিশ সুপার ব্রিফিং করবেন বলে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ছগির মিয়া জানিয়েছেন।

এদিকে হাসপাতাল মর্গে লাশ দেখার পর নিহত দুইজন চরসামাইয়া ইউনিয়নের চর ছিফলি গ্রামের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ধর্ষণ মামলার আসামি মঞ্জুর ও আলামিন বলে নিশ্চিত করেছেন ধর্ষণের শিকার শিশুটির বাবা।

সদর থানার ওসি জানান, রাতে রাজাপুর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের নদীর পাড়ে দুই গ্রুপ জলদস্যুদের মধ্যে গোলাগুলি হয়। শব্দ শুনে টহল পুলিশের দল সেখানে উপস্থিত হলে দস্যুরা ট্রলারযোগে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ দুইজনকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। 

ওসি আরও জানান, উদ্ধার করা লাশ দুইটি এখনও কেউ দাবি করেনি। তাদের পরিচয় জানান চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, ঈদুল আযহার আগের রাতে (১১ আগস্ট) সদর উপজেলার চর ছিফলি গ্রামে এক গরু ব্যবসায়ীর ১৩ বছরের শিশু কন্যা ধর্ষণের শিকার হয়। বাড়ির সামনের কাচারি ঘরে হাত-পা বেঁধে প্রতিবেশী আল আমিন ও মঞ্জুর আলম ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। 

গুরুতর অবস্থায় ওই শিশুকে তাকে প্রথমে সদর হাসপাতালে পরে অবস্থার অবনতি হলে পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শিশুটি বর্তমানে সেখানেই চিকিৎসাধীন। 

মন্তব্য