| প্রচ্ছদ

বগুড়ার শেরপুরে জেলা পুলিশের মশক নিধন অভিযান

শেরপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি
পঠিত হয়েছে ৯৫ বার। প্রকাশ: ১৬ অগাস্ট ২০১৯ ।

বগুড়ার শেরপুরে ডেঙ্গুর প্রকোপ মোকাবেলায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার পাশাপাশি মশক নিধন অভিযান চালিয়েছে জেলা পুলিশ।  শুক্রবার বেলা ১১টায় শহরের ধুনটমোড় এলাকায় এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন স্থানীয় জাতীয় সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ হাবিবর রহমান। পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে মশার প্রজননস্থল ধ্বংস করতে ১৫টি ফগার মেশিন ও ৬টি স্প্রে মেশিনের মাধ্যমে ক্যামিক্যাল স্প্রে করে মশক নিধন অভিযানে অংশ নেন তিনি। 
জেলার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞার সভাপতিত্বে এই মশক নিধন অভিযানে পদোন্নতিপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মো. সফিজুল ইসলাম, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. গাজিউর রহমান, তাপস কুমার, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুস সাত্তার, সাপ্তাহিক আজকের শেরপুর পত্রিকার সম্পাদক মুনসী সাইফুল বারী ডাবলু, ধুনট উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি প্রকৌশলী আসিফ ইকবাল সনি, শেরপুর থানার ওসি মো. হুমায়ুন কবীর, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহ জামাল সিরাজী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খাদিজা খাতুন, আ.লীগ নেতা আহসান হাবিব আম্বিয়া, মকবুল হোসেন, বদরুল ইসলাম পোদ্দার ববি, পৌরসভার কাউন্সিলর নিমাই ঘোষ, নাজমুল আলম খোকন, ফিরোজ আহমেদ জুয়েল, পিএস কোরবান আলী মিলন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া পুলিশ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় ব্যবসায়ী, সমাজসেবক, শিক্ষক-সাংবাদিকসহ নানা শ্রেণীর পেশা মানুষও এতে অংশ নেন। এই অভিযান উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় সাংসদ হাবিবর রহমান ডেঙ্গু প্রতিরোধে জেলা পুলিশের সপ্তাহব্যাপি প্রচারাভিযানের ভুয়সী প্রশংসা করে বলেন, ডেঙ্গু একটি ভাইরাসজনিত জ¦র। যা এডিস মশার মাধ্যমে ছড়ায়। তাই এডিস মশার বংশবিস্তার ঠেকাতে হবে। তাহলেই কেবল ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব। এজন্য বাসা-বাড়ির চারপাশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা রাখতে হবে। এক্ষেতে গনসচেতনতা তৈরীর কোন বিকল্প নেই। সব শ্রেণীপেশার মানুষকে সঙ্গে নিয়েই মাঠে নেমে এই অভিযান সফল করতে হবে।


অনুষ্ঠানের সভাপতির সমাপনি বক্তব্যে পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভুঞা ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়ে বলেন, নিজ নিজ বাড়ি ঘর, বাগান, আঙ্গিনা, ফুলের টব পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা রাখতে হবে। এজন্য গণসচেতনতা তৈরীর লক্ষ্যেই জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সপ্তাহব্যাপি প্রচারাভিযান চালানো হচ্ছে। একইসঙ্গে মশক নিধন কার্যক্রমও চালানো হচ্ছে। ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসাধারণকে সহযোগিতার জন্য জেলা পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, কোন এলাকায় মশার উপদ্রব দেখা দিলে পুলিশকে জানানো হলে সেখানে মশক নিধন অভিযান চালানো হবে। এছাড়া পর্যায়েক্রমে অন্যান্য উপজেলাতেও এই অভিযান পরিচালিত হবে। তাই এক্ষেত্রে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। পরে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ডেঙ্গু বিষয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়।
 

মন্তব্য