| প্রচ্ছদ

সৌদি আরবের তেলক্ষেত্রে ড্রোন হামলা

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৯ বার। প্রকাশ: ১৮ অগাস্ট ২০১৯ ।

ইয়েমেনের সশস্ত্র গোষ্ঠী আল হুতি শনিবার সৌদি আরবের একটি তেলক্ষেত্রে হামলা চালিয়েছে। তবে দেশটির জ্বালানি মন্ত্রী খালেদ আল ফালিহ জানান, এতে অপরিশোধিত তেল উৎপাদন বা রপ্তানিতে কোনো প্রভাব পড়েনি।

গালফ নিউজের প্রতিবেদনে জানা যায়, শনিবার সকালে সৌদি পূর্বাঞ্চলের সাইবান তেলক্ষেত্রে ১০টি বিস্ফোরক ড্রোন দিয়ে এই হামলা চালানো হয়। আল হুতির পক্ষ থেকে ঘটনাটির দায় স্বীকার করা হয়।

সৌদি জ্বালানি মন্ত্রী জানান, এই হামলায় স্থানীয় গ্যাস ফ্যাসিলিটিতে ছোট আকারে আগুন ধরে যায়। সামান্য ক্ষয়-ক্ষতির মধ্যে একে নিয়ন্ত্রণ করা গেছে। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।

বিশ্বব্যাপী তেল সরবরাহকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক যে ঘটনাগুলো ঘটছে এই ‘সন্ত্রাসী ও ধ্বংসাত্মক’ কাজটি তারই সম্প্রসারণ বলে জানান আল ফালিহ।

মে মাসে সৌদি আরবের পার্শ্ববর্তী ওয়েল পাম্পিং স্টেশনগুলোকে হামলা করে হুতিরা। উপসাগরে রহস্যময় আক্রমণের শিকার হয় বাণিজ্যিক জাহাজগুলো। এই ঘটনার জন্য ইরানকে দায়ী করে ‍যুক্তরাষ্ট্র।

সৌদি জ্বালানি মন্ত্রী বলেন, শনিবারের ‘কাপুরুষোচিত হামলা’ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সব ধরনের সন্ত্রাসের বিপক্ষে থাকার গুরুত্ব আবারও বুঝিয়ে দিচ্ছে। ইরান সমর্থিত আল হুতি মিলিশিয়ারা এই ধরনের হামলা চালায় বলেও উল্লেখ করেন।

আল হুতির বিরুদ্ধে ইয়েমেনে পরিচালিত সামরিক অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছে সৌদি আরব। ২০১৪ সালে এই গোষ্ঠী সরকার উৎখাত করে রাজধানী সানা দখল করে নেয়।

মন্তব্য