| প্রচ্ছদ

ভুল সংবাদ উপস্থাপন

৪ মালয়েশীয়কে ক্ষমা চাইতে জাকির নায়েকের নোটিশ

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৪২ বার। প্রকাশ: ২০ অগাস্ট ২০১৯ ।

ভারতের আলোচিত ধর্মীয় আলোচক ড. জাকির নায়েক মালয়েশিয়ার চার ব্যক্তিকে ক্ষমা চাওয়ার জন্য আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ওই চার ব্যাক্তি ক্ষমা না চাইলে তাদের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন বলে নোটিশে জানিয়েছেন তিনি। খবর মালয় মেইলের।

জাকির নায়েকের দাবি, এই চারজন তার বক্তৃতা ভুলভাবে উপস্থাপন করেছেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে মালয়েশিয়ায় মুসলমানদের মধ্যে ভুল বার্তা গেছে।

যাদের বিরুদ্ধে জাকির নায়েক নোটিশ পাঠিয়েছেন তারা হলেন- পেনাংয়ের উপ-মুখ্যমন্ত্রী পি. রামাসামি, বাগান ডালামের প্রতিনিধি পরিষদের সদস্য সাতিস মুনিয়ানদি, সাবেক রাষ্ট্রদূত ডেনিস ইগনাটিয়াস ও ক্লাংয়ের এমপি চার্লস সান্তিয়াগো।

নোটিশে ১৯ আগস্টের মধ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। নোটিশে বলা হয়েছে, ৮ আগস্ট জাকির নায়েকের দেয়া ভাষণ ভুলভাবে উপস্থাপন করেছেন ৫ ব্যক্তি। তাদের মধ্যে এই চার জন রয়েছেন।

সম্প্রতি জাকির নায়েককে উদ্ধৃতি দিয়ে মালয়েশিয়ার গণমাধ্যম সংবাদ ছেপেছে, ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের চেয়ে মালয়েশিয়ায় থাকা সংখ্যালঘু হিন্দুরা শতগুণ বেশি অধিকার ভোগ করছেন। মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী হিন্দুরা দেশটির চেয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে সমর্থন করেন বেশি। জাকির নায়েক এ ধরণের খবরের প্রতিবাদ করেছেন। তার দাবি, সংবাদমাধ্যম তার বক্তব্য ভুলভাবে তুলে ধরেছে।

হিন্দুদের নিয়ে জাকির নায়কের এই মন্তব্যের জেরে তাকে মালয়েশিয়া থেকে বের করে দেয়ার প্রসঙ্গটি আলোচনায় আসে। এ ঘটনায় তদন্তে নেমেছে পুলিশ। করা হয়েছে তদন্ত কমিটি। তদন্তে সত্যতা পেলে জাকির নায়ককে মালয়েশিয়ায় বসবাসের অনুমতি বাতিল করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ।

এ বিষয়ে মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, জাকির নায়েকের স্থায়ী বসবাসের অনুমতি রয়েছে। তবে যদি তিনি জাতির জন্য ক্ষতিকর কিছু করে থাকেন আমরা তার এই অনুমতি বাতিল করতে পারি।

তিনি বলেন, জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে এই মুহূর্তে পুলিশ তদন্ত করছে। যদি প্রমাণিত হয় তাহলে তার স্থায়ী আবাসিকতা বাতিল করা আমাদের জন্য জরুরি হয়ে পড়বে।

ভারতের সংখ্যালঘু মুসলমানদের চেয়ে মালয়েশিয়ায় থাকা সংখ্যালঘু হিন্দুরা শতগুণ বেশি অধিকার ভোগ করছে-জাকির নায়েক সম্প্রতি এমন মন্তব্য করেছেন বলে খবর বেরিয়েছে। তবে জাকির দাবি করেছেন, তার বক্তব্যকে সংবাদমাধ্যমে ভুলভাবে তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুদের নিয়ে জাকিরের এই মন্তব্যের জেরে তাকে মালয়েশিয়া থেকে বের করে দেয়ার প্রসঙ্গটি আলোচনায় আসে।

জাকির নায়েকের ওই বক্তব্যের জেরে ১৬-১৮ আগস্ট তাকে মালয়েশিয়ায় একটি ইসলামি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দিতে বাধা দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, ভারতে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর মধ্য দিয়ে জিহাদি কার্যক্রম উদ্বুদ্ধ করার অভিযোগ রয়েছে জাকিরের বিরুদ্ধে। দিল্লির পক্ষ থেকে তাকে ফেরত পাঠানোর আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হলে ২০১৮ সালে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ এ ব্যাপারে অনিচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন।

মন্তব্য