| প্রচ্ছদ

রাজশাহীর ডিসির ফোন নম্বর 'ক্লোন' করে চাঁদা দাবি

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ৩৫ বার। প্রকাশ: ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

রাজশাহী জেলা প্রশাসক (ডিসি) হামিদুল হকের সরকারি ফোন নম্বর ক্লোন করে কয়েকদিন ধরে বিভিন্নজনকে ফোন করে চাঁদা দাবির অভিাযোগ পাওয়া গেছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রোববার দুপুরে বাগমারা উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের নেতা অনিল সরকারের কাছে ফোন করে এক লাখ টাকা বিকাশে চাওয়া হয়।

ওই টাকার বিনিময়ে অনিল সরকারকে কিছু টিআর কাবিখার প্রকল্প দেওয়ার কথা বলা হয় ডিসির ক্লোন করা ফোন নম্বর থেকে। পরে বিষয়টির তথ্য ডিসির কাছে গেলে তিনি সবাইকে সতর্ক থাকার জন্য তার ফেসবুক পেজে একটি স্ট্যাটাস দেন।

বাগমারা উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার জানান, দুপুর ১২টার দিকে তার ব্যক্তিগত  মোবাইল ফোনে জেলা প্রশাসকের সরকারি নম্বর থেকে একটি কল আসে। সেই নম্বর থেকে জেলা প্রশাসক পরিচয় দিয়ে তাকে বলা হয়, ‘আপনার ভাগ্য ভালো। আপনার জন্য একটা সুখবর আছে। আপনি টিআর না কাবিখা চান। যেটা চাইবেন সেটাই পাবেন। তবে এর জন্য আপনাকে একটা তাড়াতাড়ি প্রকল্প দিতে হবে। আর এই বিকাশ নম্বরে এক লাখ টাকা পাঠাতে হবে।’

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলামকে জানান। এটা শোনার পর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিষয়টি রাজশাহী ডিসি হামিদুল হককে জানান। পরে জেলা প্রশাসক হামিদুল হক ইউএনওকে জানান, তিনি টাকা চাননি। তার ফোন নম্বর ক্লোন করে টাকা চাওয়া হতে পারে।

পরে ডিসি হামিদুল হক তার অফিসিয়াল ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন। এতে তিনি লেখেন, জেলা প্রশাসকের রাজশাহীর অফিস নম্বর ক্লোন করে বিভিন্ন ব্যক্তিকে ফোন করে অন্যায় আবদার করা হচ্ছে। সকলকে সতর্ক থাকতে অনুরোধ করছি।

এ বিষয়ে ডিসি হামিদুল হককে ফোন করা হলে তিনি বলেন, আমার ফোন নম্বরটি ক্লোন করে চাঁদা চাওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে রাজপাড়া থানায় একটি জিডি করেছি। পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছি তদন্ত করে অপরাধীদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে।

বাগমারা উপজেলা চেয়ারম্যান অনিল কুমার সরকার বলেন, যারা ডিসির ফোন নম্বর ক্লোন করে এ রকম কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। এই চক্রের ফাঁদে পড়ে অনেকেই সরল বিশ্বাসে বিকাশে টাকা দিচ্ছে।

মন্তব্য