| প্রচ্ছদ

আসামে নাগরিকত্ব হারিয়েছেন লক্ষাধিক আদিবাসী

পুণ্ড্রকথা ডেস্ক
পঠিত হয়েছে ২৭ বার। প্রকাশ: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ।

আসামে নাগরিক তালিকা (এনআরসি) থেকে বাদ পড়েছেন কয়েকটি আদিবাসী সম্প্রদায়ের ১ লাখেরও বেশি মানুষ। এমনটিই দাবি করেছে স্থানীয় একটি মানবাধিকার সংগঠন।

শনিবার চূড়ান্ত এনআরসি প্রকাশ করা হয়। এতে বাদ পড়ে ১৯ লাখ মানুষ ভারতের নাগরিকত্ব হারান।

নিউজ এইটিন জানায়, আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষকে আসামের আসল বাসিন্দা হিসেবে দাবি করে স্থানীয় মানবাধিকার সংগঠন দ্য রাইটস অ্যান্ড রিস্ক অ্যানালাইসিস গ্রুপ।

সোমবার তারা  এক বিবৃতিতে জানায়, আদিবাসীরাই আসামের আসল বাসিন্দা। অথচ এদেরই নাম বাদ পড়েছে এনআরসি থেকে।

সংগঠনটি জানায়, প্রাথমিক অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে, ২৫ হাজার বোড়ো, ১২ হাজার রিয়াং, ৮ হাজার হাজং ও অন্যান্য আদিবাসী সম্প্রদায়ের কয়েক হাজার মানুষ বাদ গিয়েছে এনআরসি-তে। 

সব মিলিয়ে লাখেরও বেশি আদিবাসী বাদ পড়েছেন বলে দাবি করা হয়।

দ্য রাইটস অ্যান্ড রিস্ক অ্যানালিসিস গ্রুপের ডিরেক্টর সুহাস চকমা বলেন, “সুপ্রিম কোর্টকে দেওয়া আসাম সরকারের একটি তথ্য থেকে জানা যাচ্ছে, জঙ্গলে বাস করা ২২ হাজার ৩৯৮ জন আদিবাসীর নাম বাদ পড়েছে। যাদের নিজেদের কোনো জমি নেই।”

বাদ পড়া আদিবাসীদের মধ্যে রিয়াং সম্প্রদায়ের অবস্থা খুব খারাপ। বেশির ভাগই চাষবাস করেন। শিক্ষার হার নেই বললেই চলে। হাইলাকান্দি জেলার বাসিন্দা এই সম্প্রদায়টির ২৫ শতাংশই তালিকা থেকে বাদ পড়েছে।

নিজস্ব জমি না থাকা, শিক্ষার অভাবে কারণে তাদের কাছে প্রয়োজনীয় দলিল বা সার্টিফিকেট নেই। ফলে এসব আদিবাসী প্রমাণ করতে পারেননি যে, ১৯৭১ সালের আগ থেকে তারা আসামে বসবাস করে আসছেন।

মন্তব্য